লেবু গাছের রস ক্ষরণ বা আঠা ঝরা (Gummosis) রোগ

ড. কে, এম, খালেকুজ্জামান: লেবু গাছের রস ক্ষরণ বা আঠা ঝরা (Gummosis) রোগটি ফাইটোফথোরা পালমিভোরা (Phytophthora palmivora), ফাইটোফথোরা সাইট্রোফথোরা (Phytophthora citrophthora) ও ফাইটোফথোরা প্যারাসাইটিকা (Phytophthora parsitica)  নামক ছত্রাকের আক্রমণে এ রোগ হয়ে থাকে।

রোগের বিস্তার: ছত্রাক মাটিতে বেঁচে থাকে এবং গাছের গোড়ায় আক্রমণ করে। ছত্রাক আক্রান্ত অংশে জুওস্পোর উৎপন্ন করে। এ সমস্ত জুওস্পোর সেচের পানি দ্বারা এক গাছ থেকে অন্য গাছে বিস্তার লাভ করে। যদি গাছের কান্ড বেশী দিন পানির সংস্পর্শে থাকে তবে এ রোগ হতে দেখা যায়।

রোগের লক্ষণ
●প্রথমে কান্ডের গোড়ার দিকে বড় বড় পানিভেজা দাগ পড়ে।
●দাগ কান্ডের উপরের ও নীচের দিকে বিস্তৃত হয়।
●ক্রমে দাগগুলি গাঢ় বাদামী রংগের হয়ে কান্ডের বাকলে লম্বালম্বি ফাটল সৃষ্টি করে।
●আক্রান্ত ফাটল থেকে আঠা ঝরতে থাকে।
●রোগ আরও বিস্তৃত হলে উপরের ডালপালায় আঠা জমতে দেখা যায়।
●আক্রান্ত গাছের ফল আকারে ছোট হয়।
●আক্রান্ত গাছের পাতা ধীরে ধীরে হলুদ হয়ে যায় ও গাছ মারা যায়।

রোগের প্রতিকার:
●নীরোগ বীজতলার চারা ব্যবহার করতে হবে।
●মাটি উঁচু ঢিবি করে গাছ লাগাতে হবে যেন পানি না দাঁড়ায়।
●জোর কলম পদ্ধতিতে চারা তৈরী করে লাগাতে হবে।
●গাছের মুল ও গোড়ায় যেন কোন ক্ষত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।
●গাছের গোড়া থেকে ১ মিটার দূরত্বে একটি গোলাকার গর্ত তৈরী করে তাতে এক সপ্তাহ পর পর কার্বেন্ডাজিম (যেমন-অটোস্টিন) প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে প্রয়োগ করতে হবে।
●আক্রান্ত অংশ ভালভাবে চেঁছে ফেলে সেই স্থানে বর্দোপেষ্ট (প্রতি লিটার পানিতে ১০০ গ্রাম তুঁতে ও ১০০ গ্রাম চুন) লাগাতে হবে।
●গাছে রোগ দেখা দেয়ার সাথে সাথে মেটালেক্সিল+মেনকোজেব গ্রুপের ছত্রাকনাশক (যেমন-রিডোমিল গোল্ড) প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে ৭ দিন পর পর গাছে স্প্রে করতে হবে।
==================
লেখক:উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্ভিদ রোগতত্ত্ব)
মসলা গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই
শিবগঞ্জ, বগুড়া।
মোবাইলঃ ০১৯১১-৭৬২৯৭৮
ইমেইলঃ This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.

antalya bayan escort bursa bayan escort adana bayan escort mersin bayan escort mugla bayan escort samsun bayan escort konya bayan escort