কৃষি সচিবের ব্রি’র গবেষণা মাঠ পরিদর্শন

গবেষণা ডেস্ক:কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান শনিবার (২৭ এপ্রিল) বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) গবেষণা মাঠ পরিদর্শন করেন। এ সময় ব্রির মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর তাকে ব্রি উদ্ভাবিত সর্বশেষ আধুনিক ধানের জাত ব্রি ধান৮৮ ও ব্রি ধান৮৯ সহ এবং ব্রি’র গবেষণা প্লট ও ব্রিডার সীড উৎপাদন প্লট ঘুরে দেখান।  

ব্রির পরিচালক (প্রশাসন ও সাধারণ পরিচর্যা) ড. মো. আনছার আলী ও পরিচালক (গবেষণা) ড. তমাল লতা আদিত্যসহ ব্রি, বারি ও নাটার উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন। গবেষণা মাঠ পরিদর্শনকালে দ্রুত জাত গুলো কৃষকের মাঠে নিয়ে যাওয়ার আহবান জানান কৃষি সচিব।  

উল্লেখ্য, ব্রি ধান৮৮ এর গড় ফলন হেক্টর প্রতি সাত টন তবে উপযুক্ত পরিচর্যা পেলে ফলন হেক্টরে ৮.৮ টন পর্যন্ত পাওয়া যায়। ব্রি ধান৮৯ এর গড় ফলন হেক্টর প্রতি আট টন। তবে উপযুক্ত পরিচর্যায় এ জাত হেক্টর প্রতি ৯.৭ টন ফলন দিতে সক্ষম।

ব্রি ধান৮৮ বোরো মৌসুমের স্বল্পমেয়াদি একটি জাত। এতে আধুনিক উফশী ধানের সব বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। ধানের দানা অনেকটা ব্রি ধান২৯ এর মতো তবে সামান্য চিকন। এ জাতের জীবনকাল ১৪০ থেকে ১৪৩ দিন। চালের আকার মাঝারি চিকন ও ভাত ঝরঝরে। এটিকে ব্রি ধান২৮ এর পরিপূরক জাত হিসেবে নির্বাচন করা হয়। এ ধানে ভাত ঝরঝরে করার উপাদান অ্যামাইলোজের পরিমাণ ২৬.৩ শতাংশ। ব্রি ধান৮৮ এর জীবনকাল বি ধান২৮ এর চেয়ে তিন-চার দিন আগাম। এ জাতে রোগবালাই ও পোকামাকড়ের আক্রমণ প্রচলিত জাতের চেয়ে অনেক কম।

ব্রি ধান৮৯ এর জীবনকাল ১৫৪ থেকে ১৫৮ দিন। এই চালের ভাত ঝরঝরে ও সুস্বাদু। এ জাতকে ব্রি ধান২৯ এর পরিপূরক হিসেবে নির্বাচন করা হয়েছে। এ জাতের জীবনকাল ব্রি ধান২৯ এর চেয়ে তিন-চার দিন আগাম। এ ধানে অ্যামাইলোজের পরিমাণ ২৮.৫ শতাংশ। ভাত ঝরঝরে ও খেতে সুস্বাদু।।   

ব্রির বিজ্ঞানীরা আশা করছেন, নতুন জাত দুটি কৃষকপর্যায়ে জনপ্রিয় হবে এবং সামগ্রিকভাবে ধান উৎপাদন বাড়বে।

antalya bayan escort bursa bayan escort adana bayan escort mersin bayan escort mugla bayan escort samsun bayan escort konya bayan escort