রজব মাসের ফজিলত

ইসলামিক ডেস্ক:মোমিন জীবনে মাহে রজবের গুরুত্ব কত অপরিসীম। রজব মাসের ফজিলত সম্পর্কে একটি প্রসিদ্ধ হাদিস-যা হজরত আনাস ইবনে মালেক (রা.) থেকে বর্ণিত হয়েছে, তিনি বলেন, রজব মাস শুরু হলে হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) এই দোয়া পড়তেন- ‘আল্লাহুম্মা বারিকলানা ফি রাজাবাও ওয়া শাবান। ওয়া বাল্লিগনা রামাজান।’ অর্থ- ‘হে আল্লাহ! আমাদের জন্য রজব ও শাবান মাসকে বরকতময় করে দিন। আর আমাদেরকে রমজান মাস পর্যন্ত পৌঁছে দিন।’ –সুনানে নাসাঈ: ৬৫৯

রজব মাস এত ফজিলতপূর্ণ হওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে হাকিমুল উম্মত হজরত মাওলানা আশরাফ আলী থানভি (রহ.) বলেন, ‘এ মাসে উল্লেখযোগ্য একাধিক ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। যেমন মেরাজ। তাই এ মাস মর্যাদাপূর্ণ। তাছাড়া হাদিসের কিতাবগুলোতে রজব মাসে রাসূল (সা.)-এর অধিক নফল ইবাদতের বর্ণনা পাওয়া যায়। এ থেকেও রজব মাসের বিশেষত্ব প্রমাণিত হয়।’

গোনাহের কারণে কলুষিত অন্তরাত্মাকে তওবার মাধ্যমে ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করে নিতে হবে রজব মাসে। হজরত আবু বকর বলখি (রহ.) বলেন, ‘রজব ফসল রোপণের মাস। শাবান ফসলে পানি সেচ দেওয়ার মাস। আর রমজান হলো-ফসল তোলার মাস।’ তিনি আরও বলেন, ‘রজব মাস ঠাণ্ডা বাতাসের মতো, শাবান মাস মেঘমালার মতো। আর রমজান মাস হলো- বৃষ্টির মতো।’ -লাতায়েফুল মাআরেফ: ১৪৩

প্রিয় নবী (সা.) রজব মাস থেকেই রমজানের প্রস্তুতি নিতেন। অধিক নফল রোজা ও ইবাদতে কাটাতেন রজব ও শাবান মাস। তাই আমাদেরও কর্তব্য রাসূলের সুন্নাহ অনুসরণ করে রজব মাসের হক আদায় করা। বেশি বেশি নফল নামাজ ও রোজা রাখা।

চলছে ফজিলতের রজব মাস; এ মাস থেকে আমরা নেক আমল করি। মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের সকলকে বেশি বেশি নেক আমল করার তাওফিক দিন-আমিণ।

antalya bayan escort bursa bayan escort adana bayan escort mersin bayan escort mugla bayan escort samsun bayan escort konya bayan escort