সকলে মিলে একসাথে বসে খাবার গ্রহণ-উত্তম সামাজিকতার পরিচায়ক

ইসলামিক ডেস্ক:সকলে মিলে একসাথে বসে খাবার গ্রহণ করা; যে কোনো কাজ সবাইকে নিয়ে করার মধ্যে মহান রাব্বুল আলামিন বরকত দান করেন। এসব কিছুই উত্তম সামাজিকতার পরিচায়ক। মহানবী সা: এমনটি পছন্দ করতেন যে, বাড়ির সবাই মিলে কিংবা বন্ধুুবান্ধবদের সবাই মিলে যেন একসাথে খাবার গ্রহণ করে।

পবিত্র কুরআনেও একাকী খাবার গ্রহণের চেয়ে একসাথে খাবার গ্রহণকে অগ্রগণ্য হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এতে এমন রহস্য লুকায়িত যে, এর দ্বারা একদিকে পরস্পর মহব্বত সৃষ্টি হয়ে থাকে; অন্য দিকে তাতে, খাবার তেমন বেশি নষ্ট হয় না। কেউ একটু বেশি খায়, কেউ একটু কম; গড়ে সমান হয়ে যায়।

‘তোমরা পরস্পর মিলেমিশে একসাথে খাবার গ্রহণ করো এবং আল্লাহর নাম নিয়ে খাবার খাওয়া শুরু করো। কেননা, তাতে তোমাদের জন্য বরকত-কল্যাণ নিহিত রয়েছে।’ (আবু দাউদ)

একবার সাহাবারা রাসূল সা:কে প্রশ্ন করলেন, আমরা খাবার খাই কিন্তু পরিতৃপ্ত হই না? নবীজী সা: জবাবে বললেন, ‘সম্ভবত তোমরা পৃথক পৃথক আহার করে থাকো! সাহবারা বললেন, জি হ্যাঁ। নবীজী সা: বললেন, তোমরা একসাথে বসে খাবার গ্রহণ করো এবং ‘বিসমিল্লাহ’ বলে খাবার শুরু করো; তা হলে তাতে বরকত হবে।’

আমাদের সমাজে বর্তমানে এসব কিছুই হারিয়ে যেতে বসেছে। তবে অনেক জায়গায় ইসলামের এ আহ্বান এখনও ধরে রেখেছেন অনেকেই। কাজেই আমরা খাবার গ্রহন থেকে শুরু করে যে কোনো কাজ ‘বিসমিল্লাহ’ বলে শুরু করি। নিশ্চয়ই মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের অধিক বরকত দান করবেন।-আমিন।

escort izmir