বাংলাদেশের পোষাপ্রাণি সেবায় যুগান্তকারি সূচনা

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম, ডেস্ক:প্রাচীনকাল থেকেই মানুষের অন্যতম বিশ্বস্ত সঙ্গী হিসেবে বিভিন্ন প্রাণী পালিত হয়ে আসছে। এদের মধ্যে কুকুর ও বিড়াল সবচেয়ে বেশি হলেও খরগোশ, গিনিপিগ, হ্যামস্টারসহ বিভিন্ন পাখিও রয়েছে এই তালিকায়। এসব পোষা প্রাণী পালনে যেমন দরকার খাদ্য ও বাসস্থান এর সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা, তেমনি অসুস্থ হলে দরকার সঠিক রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা।

বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে মানুষের কাছের এই সঙ্গীদের সব ধরণের সেবা একই ছাদের নিচে পাওয়া অনেকটাই দুষ্কর। আর একই ছাদের নিচে সেই সমন্বিত সেবা দেয়ার স্বপ্ন দেখেছেন এগার বার আন্তর্জাতিক পুরষ্কারে ভূষিত স্বনামধন্য পোষাপ্রাণি চিকিৎসক ড. কেবিএম সাইফুল ইসলাম। তারই ধারাবাহিকতায় পোষাপ্রানির মানসম্মত চিকিৎসা, সঠিক রোগ নির্ণয় ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা সহজলভ্য করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে আজ রবিবার দুপুর ১২.৩০ টায় ধানমন্ডির জিগাতলার ইউরোপা স্কুল লেনের ৬৮/১০ নং বাড়ীতে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদ্বোধন করা হয় বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ প্রাইভেট পেট কেয়ার ক্লিনিক “ড. কেবিএম সাইফুল’স ভেট এন্ড পেট কেয়ার”।

সম্প্রতি বাংলাদেশ উদ্যোক্তা সম্মাননা পুরষ্কার-২০১৭ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান পেট ডটকম ডটবিডি এর সার্বিক সহযোগিতায় প্রথমবারের মত সর্বাধুনিক স্বাস্থ্য সেবার অঙ্গীকার নিয়ে যাত্রা শুরু করলো ড. কেবিএম সাইফুল’স ভেট এন্ড পেট কেয়ার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রায় তিন শতাধিক পোষাপ্রাণি প্রেমী উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে একজন নাজরীন বলেন, আমার বাসায় ছোটবেলা থেকেই বিড়াল রয়েছে। কিছুদিন আগে আমার আদরের বিড়ালটার মারাত্মক অসুখ করে, পুরো ঢাকা শহর ঘুরে কোথাও এর সুচিকিৎসা পেলাম না। তখন ফেসবুকের মাধ্যমে ড. কেবিএম সাইফুল স্যারের কথা জানতে পারলাম, এরপর আমি তার কাছে আমার অসুস্থ বিড়ালটাকে নিয়ে আসি, তার চিকিৎসার সুবাদে আমার বিড়ালটা এখন পুরোপুরি সুস্থ।

আরেকজন পোষাপ্রাণী পালনকারী তমা হোসেন বলেন, আমি দীর্ঘ ছয় বছর যাবত কুকুর ও বিড়াল পালন করি। ছোটবেলা থেকেই এরা আমাদের সার্বক্ষণিক সঙ্গী, কিন্তু এদের চিকিৎসার জন্য কোন ভাল জায়গা পাচ্ছিলাম না। পরে এক বন্ধুর কাছ থেকে ড. কেবিএম সাইফুল ইসলাম স্যারের নাম জানতে পারলাম। তারপর থেকে গত চার বছর যাবত আমি তার কাছে আসি আমার পোষা প্রাণীদের সুচিকিৎসার জন্য। ওনার তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে পোষা প্রাণীর চিকিৎসার অত্যাধুনিক সুযোগ রয়েছে যা দেখে আমি আনন্দিত। আশা করি উন্নত দেশের মত "ভেট এন্ড পেট কেয়ারে" পোষা প্রাণীদের চিকিৎসার পাশাপাশি স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার সব ধরনের সুযোগ সুবিধা থাকবে।

ড. কেবিএম সাইফুল’স ভেট এন্ড পেট কেয়ারের অন্যতম উদ্যোক্তা ও পেট ডটকম ডটবিডির কর্ণধার রাবিতা ভূঁইয়া তনয়া ও দেওয়ান রকিব শাহ এর মতে, পোষা প্রাণীর খাদ্য ও সৌখিন দ্রব্যাদি বা প্রোডাক্ট নিয়ে আমরা কাজ করছি দীর্ঘদিন, কিন্তু ওদের পরিপূর্ণ চিকিৎসা সেবা ও স্বাস্থ্য  ব্যবস্থাপনার সুপ্ত বাসনা সবসময় মনের মধ্যে ছিল। ড. কেবিএম সাইফুল এর মত আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন প্রাণিচিকিৎসকের সাথে একত্রে কাজ করার সুযোগ পেয়ে নিজেদের অত্যন্ত ভাগ্যবান মনে করছি। আশা করি, সকলের সহযোগিতায় পোষাপ্রাণিদের জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়ান স্টপ সার্ভিসের ব্যবস্থা করতে পারব।

"ভেট এন্ড পেট কেয়ার"-এর চীফ কনসালটেন্ট ড. কেবিএম সাইফুল ইসলাম জানান, যে কোন বড় স্বপ্নের শুরুটা ছোট থেকেই করতে হয়, চারাগাছই একসময় মহীরুহতে পরিণত হয়। স্বপ্ন দেখি বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক মানের পোষা প্রাণীর হাসপাতাল গড়ে উঠবে, যেখানে রোগ নির্ণয়, চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য সেবার সকল আধুনিক সু্যোগ সুবিধা থাকবে। শুরুটা ছোট আঙ্গিকে হলেও আমরা ধীরে ধীরে আমাদের সেবার ক্ষেত্র প্রসারিত করব। বর্তমানে আমাদের টিমে চার জন রেজিস্টার্ড ভেটেরিনারিয়ান কাজ করবে। এছাড়া দেশ বিদেশের বিশিষ্ট ভেটেরিনারিয়ানদের সাথে আমাদের পারস্পরিক যোগাযোগ ও সমঝোতা রয়েছে। ফলে জটিল ও দুরারোগ্য রোগের ক্ষেত্রে মানুষের চিকিৎসার মত প্রয়োজনে বোর্ড গঠন করে পোষাপ্রাণির রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা সেবা দেয়ার সুযোগ আমাদের এখানে থাকবে। আমরা পোষাপ্রাণির চিকিৎসায় বাংলাদেশে নতুন দিগন্তের সূচনা করতে চাই।

কথা প্রসঙ্গে তিনি আরো জানান, কুকুর বিড়ালের রোগ নির্ণয়ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির র‍্যাপিড টেস্ট কিট ব্যবহার করা হবে। যেমন, কুকুরের প্রাণঘাতী পারভো ভাইরাস ও ক্যানাইন ডিসটেম্পার এবং বিড়ালের ব্লাড ক্যান্সার ও এইডস এর মত দুরারোগ্য রোগ নির্ণয় করা যাবে। এছাড়া কুকুর বিড়ালের বিভিন্ন শারীরিক অবস্থা যেমন, ডায়াবেটিকস, কিডনি রোগ ইত্যাদিতে প্রয়োজন অনুযায়ী ডায়েট ব্যবস্থাপনা থাকবে। অর্থাৎ পোষাপ্রাণি পালনে এ টু জেড সেবা পাওয়া যাবে এখন থেকে একই ছাদের নিচে।

escort beylikduzu izmir escort corum surucu kursu malatya reklam