রাবিতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার ৮৮তম জন্ম বার্ষিকী পালিত

রাবিতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার ৮৮তম জন্ম বার্ষিকী পালিত

ক্যাম্পাস ডেস্ক:বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার ৮৮তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হলে বুধবার সন্ধ্যায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া ও কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ। হলের প্রাধ্যক্ষ প্রফেসর মোছাম্মত ফাহিমা খাতুন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।  

অনুষ্ঠানে উপাচার্য তাঁর বক্তৃতায় বলেন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বাঙালি জাতির ইতিহাসে অন্যতম মহিয়সী। শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছিলেন একজন আদর্শ স্ত্রী ও স্নেহময়ী মা। পাশাপাশি তিনি ছিলেন বাঙালি জাতির অধিকার আদায়ের আন্দোলন-সংগ্রামে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একজন যোগ্য ও বিশ্বস্ত সহচর। দেশের স্বাধীনতার জন্য তিনি জাতির পিতার সঙ্গে একই স্বপ্ন দেখতেন। এ দেশের মানুষ সুন্দর জীবনের অধিকারী হোক, ভালোভাবে বেঁচে থাকুক- এ প্রত্যাশা নিয়েই তিনি বাঙালির আন্দোলন-সংগ্রামে সবসময় তৎপর ছিলেন।

জাতির প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে এই মহিয়সী বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকে তাঁকে পরামর্শ ও সহযোগিতা দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবনে তিনি ছিলেন অমিত প্রেরণার অনিঃশেষ উৎস। তাই আমরা দেখি বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে তিনি কত অসীম ধৈর্য, সাহস ও বিচক্ষণতার সাথে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছেন। আমাদের মুক্তিসংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে তাঁর অবদান চিরভাস্বর হয়ে থাকবে।

অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের রুহের মাগফিরাত কামনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম এ বারী, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার, বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন হলের শিক্ষার্থী রোকেয়া জাহান বন্যা ও জান্নাতুল ফেরদৌস।

wso shell Indoxploit shell fopo decode hızlı seo googlede üst sıraya çıkmak seo analiz seo nasıl yapılır iç seo nasıl yapılır evden eve nakliyat halı yıkama bmw yedek parça hacklink panel bypass shell hacklink böcek ilaçlama paykasa fiyatları hacklink Google