Saturday, 16 December 2017

 

দানকারী আল্লাহর নিকটতম, বেহেশতের কাছাকাছি ও মানুষের ঘনিষ্ঠ হয়ে থাকে

এগ্রিলাইফ ২৪ডটকম, ইসলামিক ডেস্ক:রাসূল সা: বলেছেন, ‘দানকারী আল্লাহর নিকটতম, বেহেশতের কাছাকাছি এবং মানুষের ঘনিষ্ঠ হয়ে থাকে, আর দূরে থাকে ভয়াবহ দোজখ থেকে। অন্যদিকে কৃপণ অবস্থান করে আল্লাহ থেকে দূরে, বেহেশতের বিপরীতে এবং মানুষের শুভকামনা থেকে অনতিক্রম্য অন্ধকারে অথচ দোজখের একান্ত সন্নিকটে।

আল্লাহর পথে ধনসম্পদ ব্যয়ের যে দু’টি উপমা পবিত্র কুরআনে এসেছে তার একটি হচ্ছে : ‘যারা নিজেদের ধনৈশ্বর্য আল্লাহর পথে ব্যয় করে তাদের উপমা একটি শস্যবীজ, যা সাতটি শীষ উৎপাদন করে, প্রত্যেক শীষে থাকে একশ’ শস্যকণা। আল্লাহ যাকে ইচ্ছা বহু গুণে বৃদ্ধি করে দেন। আল্লাহ প্রাচুর্যময়, সর্বজ্ঞ।’ (সূরা বাকারা : ২৬১)

তাফসিরে মাআরেফুল কুরআনে বর্ণিত আছে যারা আল্লাহর পথে ব্যয় করে, তাদের দৃষ্টান্ত এমন; কেউ গমের একটি দানা মাটিতে বপন করল। এ দানা থেকে উৎপন্ন হলো একটি প্রাণবন্ত চারাগাছ। চারাগাছটি বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়ে সাতটি গাছে রূপান্তরিত হলো যা থেকে সৃষ্টি হলো সাতটি পরিপুষ্ট শীষ। আর প্রত্যেক শীষ সমৃদ্ধ হলো ১০০টি দানা দিয়ে।

এই দৃষ্টান্তটি হতে অনুমান করা যায় সৎকর্মের সওয়াব এক থেকে শুরু করে ৭০০ পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়। কুরআনের উল্লিখিত দৃষ্টান্তটি বাস্তব অবস্থার সাথে একান্তভাবে তুলনীয়। সরষ মাটিতে রোগমুক্ত শস্যের দানা রোপণ করলেও সঠিক পরিচর্যা ছাড়া কৃষক কখনো তার কাঙ্খিত ফসল পাবে না। ফসল ফলানোর যাত্রাপথে কোনো একটি পদক্ষপ ত্রুটিপূর্ণ হলে আশানুরূপ ফল লাভের সম্ভাবনা থাকে না। কোনো কোনো সময় তার সব শ্রম এবং আর্থিক বিনিয়োগ সমূলে বরবাদ হওয়ার ঝুঁকিকে নাকচ করা যায় না।

আল্লাহর পথে ধনসম্পদ বিনিয়োগ সম্পর্কে দ্বিতীয় যে উদাহরণটি পবিত্র কুরআনে আছে তা হলো : ‘যারা আল্লাহর সন্তুষ্টি এবং নিজেদের আত্মা বলিষ্ঠ করার উদ্দেশ্যে ধনসম্পদ খরচ করে তাদের উপমা কোনো উঁচুভূমিতে অবস্থিত উদ্যান, যাতে মুষলধারে বৃষ্টি হয় ফলে ফলমূল দ্বিগুণ জন্মে। যদি মুষলধারে বৃষ্টি নাও হয় তবে অল্প বৃষ্টিপাতই যথেষ্ট। তোমরা যা কর আল্লাহ তার সম্যক দ্রষ্টা।’ (সূরা বাকারা : ২৬৫)

গ্রহণযোগ্য দানের উদাহরণ দেয়া হয়েছে উপরোক্ত আয়াতে। যারা আত্মার দৃঢ়তা এবং আল্লাহর খুশির জন্য নিজের সম্পদ ব্যয় করে তাদের উপমা দেয়ার জন্য আল কুরআনে টিলায় অবস্থিত বাগানকে সাব্যস্ত করা হয়েছে। উঁচু জায়গায় থাকায় তা বন্যাপ্লাবন থেকে সুরক্ষিত। অতি বর্ষণে সৃষ্ট জলাবদ্ধতা এর গাছপালার রোগবালাই বাড়ায় না। আর অল্প বৃষ্টি হলেও প্রবাহিত বাতাসের আর্দ্রতা এবং অবাধ সূর্যকিরণের চাঞ্চল্যে বাগানের ফলন প্রচুর পরিমাণে হয়ে থাকে। বিশুদ্ধ নিয়ত এবং গভীর আন্তরিকতার সাথে আল্লাহর পথে ব্যয় করলে তা অবশ্যই পারলৌকিক কল্যাণ বয়ে নিয়ে আসবে।

মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের সকলকে মহান আল্লাহ্র সন্তুষ্টির জন্য বেশি বেশি দান-খয়রাত করার সুযোগ করে দিন।-আমিন