Friday, 17 November 2017

 

হাজার রাতের চেয়ে পুণ্যময়-লাইলাতুল কদরের রাত্রি

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম, ইসলামিক ডেস্ক:আজ দিবাগত রাতে পবিত্র শবে কদর। মুসলিম উম্মাহ্’র নিকট এ রাত হাজার রাতের চেয়ে পুণ্যময়। শবে কদরে পবিত্র কুরআন নাজিল হয়েছে। মূলত এজন্যই রমজান মাস কিংবা এ রাতের এত গুরুত্ব ও তাৎপর্য। পবিত্র শবে কদর বা লাইলাতুল কদরের রাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ আল্লাহ’র নৈকট্য ও রহমত লাভের আশায় ইবাদত বন্দেগী করে থাকেন। এ রাতে মুসলমানগণ নফল নামাজ আদায়, পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, জিকির-আসকার, দোয়া, মিলাদ মাহফিল ও আখেরি মোনাজাত করবেন।

 

পবিত্র কুরআনে ‘কদর’ নামে স্বতন্ত্র একটি সূরা নাজিল করে আল্লাহতায়ালা শবে-কদরের গুরুত্ব অল্প কথায় বুঝিয়ে দিয়েছেন। আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেছেন ‘আমি একে নাজিল করেছি শবে-কদর। শবে-কদর সম্বন্ধে আপনি কি জানেন? শবে-কদর হলো হাজার মাস অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ। এতে প্রত্যেক কাজের জন্য ফেরেশতাগণ ও রুহ অবতীর্ণ হয় তাদের পালনকর্তার নির্দেশে। এটা নিরাপত্তা- যা ফজর উদয় পর্যন্ত অব্যাহত থাকে’। সূরা কদর।

হাদিসে রয়েছে পবিত্র রমজান মাসের শেষ দশকের বেজোড় রজনীতে শবে-কদর নিহিত। কথা হলো, তাহলে আমরা রমজানের ২৬তম দিবাগত রাত কেন শবে-কদর উদযাপনে এতো ব্যস্ত হয়ে পড়ি? এ প্রশ্নের জবাবের আগে শবে-কদর এমন উহ্য রাখার হেতু সম্পর্কে আলোকপাত করা প্রয়োজন। শবে-কদরকে গোপন রাখার মধ্যে রয়েছে আল্লাহতায়ালার বিরাট হিকমত ও রহস্য। প্রত্যেক মূল্যবান বস্তু হাসিল করা যেমন কষ্টসাধ্য ব্যাপার, তেমনি আল্লাহর উদ্দেশ্য হলো এ মহামূল্যবান রাতের অনুসন্ধানে বান্দাগণ সাধনা করুক, এক রাতের জন্য ৩০টি রাত জাগ্রত থাকুক।

মানুষ দুনিয়ার কতো তুচ্ছ জিনিসের জন্য কতো রাতের নিন্দ্রা হারাম করে দেয়। কিন্তু হাজার মাসেরও অধিক মর্যাদাসম্পন্ন একটি রাতের জন্য কিছু কষ্ট স্বীকার করতে পারে না। ওলামায়ে কিরামগণ শবে-কদরের গোপনীয়তার আরেকটি রহস্য এভাবে ব্যক্ত করেন যে, শবে-কদর যদি নির্দিষ্ট রাতে অনুষ্ঠিত হতো এবং তা’ মানুষের জানা থাকতো, তবে অনেক অলস ও গাফেল হতভাগ্য ব্যক্তি এমন একটি মহান রাতের মর্যাদা না দিয়ে আল্লাহর গজবে পতিত হতো। এ জন্য উচিত হলো শেষ দশকের প্রতি বেজোড় রাতে জাগ্রত থেকে কিছু জিকির-আজকার, তসবীহ-তাহলীল, তেলাওয়াত, নফল নামাজ প্রভৃতির মাধ্যমে শবে-কদরের ফজিলত অর্জনের চেষ্টা করা। অন্তত এশা ও ফজর নামাজ জামাতের সাথে আদায় করা। হাদিসে রয়েছে এশা এবং ফজরের নামাজ জামাতে আদায় করা প্রকারান্তরে সম্পূর্ণ রাত ইবাদত করার সমতুল্য।

পবিত্র শবে কদর উপলক্ষে বুধবার রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।