Thursday, 19 July 2018

 

পরিশ্রমের মাধ্যমে ইহলৌকিক ও পারলৌকিক কল্যাণের কথা বলে ইসলাম

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:পরিশ্রমের মাধ্যমে ইহলৌকিক ও পারলৌকিক কল্যাণ সাধণ করার তাগিদ দেয় ইসলাম। আলস্য ও কর্মবিমুখতা মানুষ ও জাতিকে দারিদ্র্যের দিকে ঠেলে দেয়। সুতরাং দারিদ্র্য হতে আত্মরক্ষার জন্য বান্দার নিজ চেষ্টা ও কর্মের বিকল্প নেই।

এ প্রসঙ্গে পবিত্র কুরআনে বলা হয়েছে “আল্লাহ্ কোন সম্প্রদায়ের অবস্থা পরিবর্তন করেন না যতক্ষণ না উহারা নিজ অবস্থা নিজে পরিবর্তন করে”। “আল-কুরআন, ১৩:১১”। অবশ্য কর্মক্ষম অভাবী লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা সমাজ ও রাষ্ট্রকে যেমন করতে হবে, যেমনটি করেছিলেন নবী করীম স. এক ভিক্ষুককে একটি কুঠার কেনার ব্যবস্থা করে দিয়ে তার জীবনধারণের জন্য বন থেকে কাঠ সংগ্রহ করে তা বাজারে বিক্রি করতে। “এ উদাহরণটি এখানে জনগণের জীবন ধারণের জন্য সরকারের কর্মসংস্থান সৃষ্টির দায়িত্ব পালনের রূপক অর্থে ব্যবহার করা হয়েছে।” তেমনি দরিদ্রলোককে আলস্য ও কর্মবিমুখতার মানসিকতাও ত্যাগ করতে হবে। আল্লাহ্ বলেন: “তুমি ধৈর্য ধারণ কর, কারণ নিশ্চয় আল্লাহ্ সৎকর্মপরায়ণদের শ্রমফল নষ্ট করেন না।” “আল-কুরআন, ১১:১১৫”।

মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের সকলকে পরিশ্রম করে সৌভাগ্যের ফল ঘরে আনার তাওফিক দিন-আমিন।