Saturday, 21 April 2018

 

সত্য ও ন্যায়ের স্বার্থে সর্বোচ্চ ত্যাগের শিক্ষা দেয় মুহাররম

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম ইসলামিক ডেস্ক:রক্তস্নাত কারবালার শোকাবহ স্মৃতি নিয়ে মুহাররম এসেছে সত্য ও ন্যায়ের স্বার্থে সর্বোচ্চ ত্যাগের আদর্শ ও শিক্ষা নিয়ে। ইসলামী ও আরবি বর্ষপঞ্জির অত্যন্ত সম্মানিত ও তাৎপর্যপূর্ণ মাস মুহাররম। এ মাসে সংঘটিত হয়েছে মানবজাতির ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ও গুরুত্বপূর্ণ একাধিক ঘটনা, যা এই মাসকে স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য মর্যাদার অধিকারী করেছে। তাই মুহাররমের শিক্ষা ও তাৎপর্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

২২ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন আরবি বছর শুরু পবিত্র আশুরা ১ অক্টোবর

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:বাংলাদেশের আকাশে পবিত্র মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেছে। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদ দেখা যায়। সে হিসেবে আগামীকাল শুক্রবার শুরু হচ্ছে নতুন আরবি বছর। আগামী ০১ অক্টোবর (১০ মহররম) পালিত হবে পবিত্র আশুরা। রাজধানীর বায়তুল মুকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম মন্ত্রণালয়য়ের সচিব মো. আনিছুর রহমান।

হজ্জ পালন পরবর্ত্তী জীবনধারা

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম, ইসলামিক ডেস্ক:সম্প্রতি সফলভাবে হজ্জ পালন করলেন বাংলাদেশের লাখের উপর ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। হজ্জ পালনের মাধ্যমে প্রত্যেকটি মু’মিন মুসলমান আল্লাহ তায়ালার খুব কাছাকাছি যাওয়ার সুযোগ পান। প্রতি বছর জিলহজ্জ মাসের ৯ তারিখে পৃথিবীর সব প্রান্ত থেকে লাখ লাখ মুসলমান আরাফাতের ময়দানে সমবেত হন এবং আল্লাহর শ্রেষ্ঠত্ব ঘোষণা করেন। লাখো কণ্ঠে ধ্বনিত হয় : লাব্বায়েক আল্লাহুমা লাব্বায়েক। লাব্বায়েক, লা শারিকালাকা লাব্বায়েক।

রোহিঙ্গারা আমাদেরও ভাইবোন-তাদের সাহায্য করা এখন বড় প্রয়োজন

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম, ইসলামিক ডেস্ক:নির্যাতিত-নিপীড়িত রোহিঙ্গা মুসলিম ভাইবোনেরা ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে আমাদেরও ভাইবোন। বিতাড়িত হয়ে তারা বর্তমানে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এমতাবস্থায় তাদের পাশে আমাদের দাঁড়াতে হবে। উদার হাতে তাদের সহযোগিতায় সকলের এগিয়ে আসা প্রয়োজন। কেননা কুরআন কারিমের ভাবানুবাদ অনুযায়ী ‘সব মুমিন ভাই ভাই’। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ভাষ্য অনুযায়ী ‘এক মুমিন অপর মুমিনের জন্য প্রাচীরের মতো, এক অংশ অন্য অংশকে মজবুতভাবে আঁকড়ে থাকে’

ইসলামের আলোকে কোরবানির পশু নির্বাচন

কৃষিবিদ মোহাইমিনুর রশিদ:মহান আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন, নৈকট্য লাভ ও ত্যাগের শিক্ষা প্রাপ্তির উদ্দেশ্যে প্রিয়বস্তু বা প্রিয়প্রাণি উৎসর্গের নামই কোরবানি। শরিয়তের পরিভাষায় মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে নির্দিষ্ট সময়ে সুনির্দিষ্ট পশু জবাই করাকে কোরবানি বলে (শামি ৫ম খন্ড)। ইসলামি শরিয়াহ মোতাবেক ছয় ধরনের পশু দ্বারা কোরবানি আদায় করার তাগিদ রয়েছে। এগুলো হলো ছাগল, ভেড়া, দুম্বা, গরু, মহিষ এবং উট। সুন্দর, আকর্ষণীয়, প্রিয় ও অতি পছন্দনীয় পশু কোরবানির মাধ্যমে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি ও নৈকট্য অর্জন করা যায়।