Saturday, 16 December 2017

 

জাতীয় সবজি মেলা ২০১৭’ উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতির বাণী

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:সবজি চাষে উদ্বুদ্ধকরণ ও পুষ্টিগুণ বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করতে রাজধানীর ফার্মগেটস্থ আ.কা.মু গিয়াস উদ্দীন মিল্কী অডিটরিয়াম চত্বরে ০৫ জানুয়ারি থেকে তিনদিন ব্যাপি জাতীয় সবজি মেলা শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

“কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ৫-৭ জানুয়ারি ‘জাতীয় সবজি মেলা-২০১৭’ অনুষ্ঠিত হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। জাতীয় সবজি মেলার এবারের প্রতিপাদ্য ‘সুস্থ সবল স্বাস্থ্য চান, বেশি করে সবজি খান’ অত্যন্ত যৌক্তিক ও সময়োপযোগী বলে আমি মনে করি।

নানা ভিটামিন ও খনিজ লবণে সমৃদ্ধ শাকসবজি আমাদের দেহ ও মনকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি কর্মোদ্যমী করে তোলে। দৈনন্দিন পুষ্টি চাহিদা পূরণের মাধ্যমে শারীরিক সুস্থতা বজায় রাখতে শাকসবজির ভূমিকা অপরিসীম। বর্তমান সরকারের সময়োপযোগী পদক্ষেপ এবং সংশ্লিষ্ট সকলের প্রচেষ্টায় বিগত কয়েক বছরে বাংলাদেশ দানাদার খাদ্যে শুধু স্বয়ংসম্পূণতাই অর্জন করেনি, উদ্বৃত্ত খাদ্যের দেশ হিসেবে রপ্তানিও করছে। সুস্থ জাতি গঠনে জনগণের সুস্বাস্থ্য রক্ষায় খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতের পর পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করাও জরুরি।

আমাদের মাটি ও জলবায়ু বিভিন্ন শাকসবজি চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। প্রতিটি আবাদযোগ্য জায়গায় পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন মৌসুমি শাকসবজির চাষাবাদ করলে একদিকে যেমন পুষ্টি চাহিদা পূরণ হবে অন্যদিকে আর্থিকভাবে যথেষ্ট লাভবান হওয়া যাবে। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে সবজি আবাদ ও উৎপাদন রেকর্ড পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে যা অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। অগ্রযাত্রার এ ধারাকে টেকসই রূপ দিতে সারাবছর চাষ উপযোগী সবজির জাত ও কলাকৌশল উদ্ভাবন এবং সম্প্রসারণের জন্য আমি সংশ্লিষ্টদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাই।

জাতীয় সবজি মেলা-২০১৭ এর আয়োজনের মধ্য দিয়ে সবজি আবাদ, সরবরাহ ও বিপণন, সংরক্ষণ, পুষ্টি চাহিদা পূরণ সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধি পাবে এবং জনগণ যথেষ্ট উপকৃত হবে বলে আমার বিশ্বাস।

‘জাতীয় সবজি মেলা ২০১৭’ সফল হোক-এ কামনা করি।

খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

--পিআইডি’র সৌজন্যে