Monday, 18 December 2017

 

স্বল্প খরচে স্থানীয় বাজারে টমেটোর গুণগতমান ও সংরক্ষণকাল উন্নয়নে কার্যকরী প্রযুক্তিসমূহ

কৃষিবিদ মোহাইমিনুর রশিদ:বাংলাদেশে উৎপাদিত সবজিসমূহের মধ্যে শীতকালীন টমেটো অন্যতম সুস্বাদু ও জনপ্রিয় সবজি। টমেটো তাজা অবস্থায় সালাদ করে খাওয়া যায়। রুচিশীল রান্নার শৈল্পিক উপকরণ হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। ভিটামিন সি, পটাসিয়াম, ফলিক এসিড এবং লাইকোপিন ও ক্যারোটিন জাতীয় ক্যারোটিনয়েডের অন্যতম উৎস হলো টমেটো।

ক্ষুদ্র চাষীরা শীতকালে টমেটো চাষ করে স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে। টমেটোতে উচ্চ জলীয় অংশের পরিমাণ বেশি থাকে। তাছাড়া টমেটো গঠনে যথেষ্ট নরম। ফলে টমেটো তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়। তাই কৃষকেরা যদি সঠিক সময়ে টমেটো সংগ্রহ এবং সংগ্রহ থেকে খুচরা বিক্রি পর্যন্ত পুরো সরবরাহ ব্যবস্থা সঠিকভাবে পরিচালনা না করে তাহলে পণ্যটি পরিমাণগত এবং গুণগত ক্ষতির সম্মুখীন হয়। এ ধরনের ক্ষতি কৃষকসহ সরবরাহ ব্যবস্থায় নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট সকলের আয় কমিয়ে দেয়। অদক্ষ ব্যবস্থাপনা শীতকালীন টমেটোর সংরক্ষণকাল কমিয়ে দেয় এবং তাতে বিক্রির পরিমাণ কমে যায়। ফলে খুচরা বিক্রেতাদের আয়ও কমে যায়। তাই টমেটোর গুণগতমান ও সংরক্ষণকাল উন্নয়নে ব্যতিক্রমধর্মী গবেষণাভিত্তিক লেখাটি টমেটো চাষীসহ সংশ্লিষ্ট সবার কাজে আসবে বলে আমার বিশ্বাস।

সংগ্রহোত্তর দক্ষ ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব

উৎপাদন শেষে অর্থাৎ ফসল সংগ্রহের সময় থেকেই সংগ্রহ পরবর্তী কার্যাদি শুরু হয়। গুণগতমান (সতেজতা, রং, গন্ধ এবং পুষ্টিমান) বজায় রাখতে ফসল সংগ্রহ ও সংগ্রহ পরবর্তী উন্নত ব্যবস্থাপনার প্রয়োজন হয়, এতে টমেটোর সংরক্ষণকাল বেড়ে যায় এবং ভোক্তাদের নিরাপদ খাদ্যমান নিশ্চয়তা প্রদান করে। টমেটোর সংগ্রহ পরবর্তী ক্ষতির কারণগুলোর মধ্যে রয়েছে: ক্রটিপূর্ণ সংগ্রহ পদ্ধতি, অসাবধান হ্যান্ডলিং, দুর্বল প্যাকেজিং ও পরিবহন ব্যবস্থা। উৎপাদনকারী, বিপনন ব্যবস্থা এবং ভোক্তার উপকারার্থে টমেটোর পুরো সরবরাহ ব্যবস্থায় এ ধরনের ক্ষতিসমূহ রোধ করা বা কমানোর জন্য যথোপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন।

টমেটো সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নয়ন কৌশল

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার কারিগরি সহায়তা প্রকল্প:TCP/RAS/3502-Reducation of Post-harvest Losses in Horticulral Chains in SAARC Countries এর আওতায় বাংলাদেশে প্রচলিত টমেটো সরবরাহ ব্যবস্থার সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে প্রযুক্তিগত উন্নয়ন পর্যবেক্ষন করা হয়েছে। এ গবেষণায় টমেটোর গুণগত এবং পরিমাণগত ক্ষতিসমূহ এবং সংরক্ষণকাল মূল্যায়ন করা হয়েছে। প্রবর্তিত সুনির্দিষ্ট উন্নয়নসমূহ সংক্ষেপে উপস্থাপন করা হলো।

প্রচলিত পদ্ধতিসমূহ

প্রচলিত পদ্ধতিতে কৃষকেরা টমেটো সংগ্রহে সংগ্রহপাত্র হিসেবে বাঁশের ঝুড়ি ব্যবহার করে থাকে। টমেটো সংগ্রহের পর সাধারণত টমেটোর সাথে লেগে থাকা বোঁটা ছাঁটাই করে না, নতুবা লেগে থাকা বোঁটা টেনে ছিড়ে ফেলে।তাছাড়া মাঠ থেকে টমেটো সংগ্রহের পরপরই টমেটোগুলো ধৌত করে না। অত:পর প্রায় ৫০ কেজি ধারণক্ষমতা যুক্ত লালজালিকা বস্তা বা অন্যান্য বস্তা দ্বারা বস্তাবন্ধি করে ভ্যান বা ট্রাকে করে আড়তে পাঠানো হয়।

উন্নত পদ্ধতিসমূহ

টমেটো সরবরাহে উন্নত পদ্ধতিসমূহ হলো টমেটো সংগ্রহের সময় অবশ্যই প্লাস্টিক বালতি এবং সংগ্রহপাত্র হিসেবে প্লাস্টিক ক্রেট ব্যবহার করা। টমেটোগুলো সংগহের পরপরই ফলের গায়ে লেগে থাকা বোঁটা কাঁচির সাহায্যে ছাঁটাই করা। বোঁটাগুলো ছাঁটাইয়ের পর পরিষ্কার পানিতে ১৫০ পিপিএম ক্লোরিন মিশিয়ে ঐ পানিতে টমেটোগুলো খুব ভালোভাবে ধৌত করা। অত:পর ২৫ কেজি ধারণ ক্ষমতাযুক্ত প্লাস্টিক ক্রেটে টমেটোগুলো রাখা। টমেটোগুলো রাখার আগে প্লাস্টিক ক্রেটের সব দিকে কাগজ মুড়িয়ে দেয়া যেন প্লাস্টিক ক্রেটের গায়ে লেগে টমেটোগুলো আঘাত না পায়।

সংগ্রহোত্তর ক্ষতিসমূহ ও হ্রাসকরণ কৌশল

শীতকালীন টমেটো সংগ্রহ কেন্দ্র থেকে পাইকারী বাজারে পরিবহনের সময় ঘর্ষণ, সংকোচন এবং ফল ফেটে যাওয়া এসব যান্ত্রিক কারণের জন্য ক্ষতি হয়। খুচরা পর্যায়ে মূলত: পঁচে যাওয়া এবং বাহিরের গঠন নষ্ট হবার কারণে গুণগতমান কমে যায়। গবেষণায় পাওয়া যায়, পাইকারী বাজারে পৌছানোর পর প্রচলিত পদ্ধতির হ্যান্ডলিং করা টমেটোর মধ্যে শতকরা ১৬.৭ ভাগ টমেটো ফেটে বাহ্যিক গঠনের ক্ষতি হয়েছে। উন্নত পদ্ধতিতে প্লাস্টিক ক্রেটে পরিবহন করা টমেটোর মধ্যে কোনো ফেটে যাওয়া টমেটো পরিলক্ষিত হয়নি। এভাবে উন্নত পদ্ধতিতে বৃহদাকার প্যাকেজিং এর মাধ্যমে শতকরা ১০০ ভাগ সংগ্রহোত্তর ক্ষতি কমানো সম্ভব।

প্রচলিত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিং করা টমেটো মধ্যে বিক্রয় সময়ের ০৩ দিনে শতকরা ২০.২ ভাগ টমেটোতে যান্ত্রিক ক্ষতের চিহ্ন পরিলক্ষিত হয়েছে। অন্যদিকে, উন্নত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিং করা টমেটোর মাত্র শতকরা ২.১ ভাগ টমেটো ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। উন্নত পদ্ধতি ব্যবহার করে প্রচলিত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিং করা টমেটোর শতকরা ৮৯ ভাগ সংগ্রহোত্তর ক্ষতি কমানো সম্ভব। উন্নত পদ্ধতিতে সংগ্রহোত্তর ক্ষতির পরিমাণ শতকরা ৩৬.৯ ভাগ  থেকে শতকরা ২.১ ভাগ এ কমানো সম্ভব হয়েছে যা প্রায় শতকরা ৯৪ ভাগ এর সমান। তাই উন্নত পদ্ধতি হিসেবে প্যাকেজিং করার সময় অবশ্যই ক্রেট ব্যবহার করা উত্তম।

সংরক্ষণকাল বৃদ্ধিতে উন্নত পদ্ধতিগুলোর ব্যবহার

যে সময় পর্যন্ত একটি পণ্য খাওয়ার উপযোগী হিসেবে কিংবা বিক্রয়যোগ্য থাকে ঐ সময়কালকে উক্ত পণ্যের সংরক্ষণকাল বলে। খুচরা বিক্রয় সময় ০৩ দিনের মধ্যে বিক্রয়কৃত টমেটোর পরিমাণ প্রচলিত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিং করা টমেটোর চেয়ে উন্নত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিং করা টমেটোর অধিক গুণগতমান ও সংরক্ষণকাল পরিলক্ষিত হয়েছে। বিক্রয়যোগ্য টমেটোগুলো দেখতে টাটকা ছিল এবং ঘর্ষণ ও চাপ জনিত ক্ষতি সামান্য ছিল। উন্নত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিং করা টমেটো খুচরা বাজারে বিক্রয়যোগ্য টমেটোর সংখ্যা ১ম ও ২য় দিনে ছিল শতকরা ৯৭.৮ ভাগ, ৩য় দিনে কিছুটা কমে যায় (৯৫.৪%)।

অন্য দিকে প্রচলিত পদ্ধতিতে হ্যান্ডলিংকৃত টমেটোর খুচরা বাজারে বিক্রয়যোগ্য টমেটোর সংখ্যা ১ম দিনে ছিল শতকরা ৮২.৪ ভাগ  যা ৩য় দিনে ৭৫% এ নেমে আসে । এভাবে উন্নত হ্যান্ডলিং পদ্ধতির কারণে খুচরা বিক্রেতাগণ অধিক পরিমাণ গুণগত মানসম্পন্ন টমেটো বিক্রি করে অধিক লাভবান হতে পারে।

উৎপাদিত পণ্যের নিরাপদতা নিশ্চিতকরণে উন্নত পদ্ধতিসমূহ

মাঠ থেকে ফসল সংগ্রহ করে খুচরা বাজারে বিক্রয় পর্যন্ত সময়ে সম্পৃক্ত কর্মীবৃন্দের সংস্পর্শ দ্বারা এবং ক্ষতিকর অনুজীব কর্তৃক আক্রান্ত হওয়া টমেটোসমূহের দূষণ ঝুঁকি কমানোর জন্য হ্যান্ডলিং এর সর্বপর্যায়ে উত্তম ব্যবস্থাপনা প্রয়োজন। উন্নত সংগ্রহোত্তর পদ্ধতির সাহায্যে শীতকালীন টমেটোর ভোক্তাদের খাবার অনুপযোগী টমেটো কেনার ঝুঁকি কমানো যায়।
আর্থিক লাভক্ষতি

গবেষণায় লাভক্ষতির বিশ্লেষণে দেখা যায়, টমেটো পরিবহনে পাইকারি বিক্রেতা লালজালিকা বস্তার পরিবর্তে প্লাস্টিক ক্রেট ব্যবহার করে অধিক আয় করতে সক্ষম । খুচরা পর্যায়ের বিক্রেতাগণ গুণগতমান এবং অধিক সংরক্ষণকাল সম্পন্ন বেশি পরিমাণ টমেটো লম্বা সময়ব্যাপী বিক্রয় করে অধিক লাভ করতে সক্ষম।  

পরিশেষে, টমেটো পরিপক্কতার সাথে সাথেই পাত্র হিসেবে প্লাস্টিক বালতি এবং সংগ্রহপাত্র হিসেবে প্লাস্টিক ক্রেট ব্যবহার করা। টমেটো সংগ্রহের সময় খুব ভোরবেলা বা বিকেলে করা উচিত। টমেটো সংগ্রহের পরে বোঁটা কাঁচির সাহায্যে ছাঁটাই করা দরকার। তারপর পরিষ্কার পানির সাথে ক্লোরিণ মিশিয়ে ভালোভাবে ধৌত করা উচিত। অত:পর ২৫ কেজি ধারণ ক্ষমতাযুক্ত প্লাস্টিক ক্রেটে টমেটোগুলো ছায়াযুক্ত স্থানে রাখা প্রয়োজন । পরবর্তীতে ক্রেটগুলো সারিবদ্ধভাবে ট্রাকে বা ভ্যানে রাখতে হবে। টমেটো সংগ্রহ থেকে বাজারজাত পর্যায়ের সকল স্তরে শ্রমিকগণের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে হবে। এভাবে টমেটো নষ্ট হওয়া, পচন ও অন্যান্য ক্ষয়ক্ষতি কমানো সম্ভব। ফলে টমেটোর গুণগতমান বজায় রেখে সংরক্ষণকাল বৃদ্ধি পাবে ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা লাভবান হবে।
=================================
লেখক: আঞ্চলিক বেতার কৃষি অফিসার, কৃষি তথ্য সার্ভিস, সিলেট।