Saturday, 23 September 2017

 

কলা গাছের পানামা রোগ দমনের বিস্তারিত টিপস্

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কলা গাছের পাতা শুকিয়ে মরতে দেখে চিন্তিত হয়ে পড়েন কলা চাষীরা।না জেনে অনেক সময় তারা দিশেহারা হয়ে পড়েন। তবে কলা চাষে আর্থিকভাবে লাবান হতে চাইলে কলা গাছের নানা রোগ সম্পর্কে চাষীদের সম্যক ধারনা থাকা প্রয়োজন। তেমনি একটি রোগ হলো কলার পানামা রোগ।এগ্রিলাইফ২৪ ডটকমের সম্মানিত পাঠকদের জন্য পানামা রোগের বিস্তারিত টিপস্ রয়েছে এ লেখাটিতে---

এ রোগ চিনবেন কিভাবে?

  • কলাগাছের বয়স্ক সবুজ পাতা ও পাতার ডগা প্রাথমিক অবস্থায় হলুদ, এরপর কালো রং-এর দাগ পড়ে এবং বোঁটা ভেঙে পাতাগুলো গাছের সাথে ঝুলে পড়ে। কিছু দিনের ভিতর প্রায় সব পাতা শুকিয়ে যায়
  • শুকানোর পূর্বে পাতার কিনারা থেকে হলুদ লক্ষণ শুরু হয় এবং তা মধ্য শিরা পর্যন্ত বিস্তৃত হয়।
  • কলা গাছের কান্ড(ভুয়া কান্ড) লালচে হয়ে ফেটে যায়।
  • গাছ আস্তে আস্তে মারা যায়।
  • আক্রান্ত কলা গাছের কান্ড(ভুয়া কান্ড) আড়াআড়িভাবে কাটলে কান্ডের উপরিভাগে বা থোড়ের মাঝে লালচে কালো দাগ দেখা যায়।
  • লম্বালম্বি কাটলে পঁচা মাছের আঁশটে গন্ধ পাওয়া যায়।
  • মাটির নিচে শক্ত অংশেও (কান্ড) কালচে হয়ে পচন দেখা দেয়।
    ক্ষতির মাত্রা:
  • আক্রমণের কিছুদিনের মধ্যে বাগানের প্রায় সকল গাছ মারা যায়।
  • জীবিত গাছগুলোতে ফল অত্যন্ত ছোট হয়।

ফলন্ত গাছ আক্রান্ত হলে ফলের গুণগতমাণ ও মিষ্টতা কমে যায়।

রোগ প্রতিরোধ ও দমন ব্যবস্থা:

  • আক্রান্ত জমি থেকে চারা সংগ্রহ করা যাবে না
  • রোগ প্রতিরোধী জাতের কলা যেমন-বারি কলা-১, বারি কলা-২, অমৃতসাগর, চম্পা ইত্যাদি চাষ করুন
  • জমিতে যথাযথ ভাবে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করতে হবে
  • গাছ লাগানোর আগে জমিতে শতক প্রতি আধা কেজি ডলো চুন প্রয়োগ করতে পারেন।
  • একই জমিতে ২ বছরের বেশি কলা চাষ করা থেকে বিরত থাকুন।
  • জমি নিয়মিত পরিদর্শন করুন এবং পরিষ্কার পরিছন্ন রাখুন।
  • আক্রান্ত গাছ দেখা মাত্রই কান্ড (পাতা ও শেকড়সহ) তুলে মাটিতে পুঁতে ফেলুন বা পুড়িয়ে ফেলুন।

সতর্কতা: যে কোন বালাইনাশক ব্যবহার করার সময় প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। প্যাকেট বা বোতলের গায়ে লেখা পরামর্শ অবশ্যই মেনে চলতে হবে। প্রয়োজনে আপনার নিকটস্থ কৃষি অফিসে কৃষি কর্মকর্তার সহায়তা নিন।