Friday, 24 November 2017

 

'কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন' তথ্য আদান-প্রদানে কৃষকরা এগিয়ে যাবে-মোঃ মোশারফ হোসেন

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ মোশারফ হোসেন বলেছেন, 'এই বাতায়নের মাধ্যমে সারা দেশের কৃষকরা তথ্য আদান-প্রদানে এগিয়ে যাবে। কৃষক, কৃষি কর্মকর্তা, কৃষি মন্ত্রণালয় অর্থাৎ উপর থেকে প্রান্তিক পর্যায় পর্যন্ত সবার মধ্যে যে একটা যোগাযোগ স্থাপিত হবে সেটি অনেক গর্বের বিষয়। তিনি গত ১ নভেম্বর বুধবার সকালে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম এবং কৃষি মন্ত্রণালয় এর যৌথ আয়োজনে 'কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন'র পরীক্ষামূলকভাবে চালু উপলক্ষ্যে কৃষি মন্ত্রীর সাথে ভিডিও কনফারেন্সিং এ তিনি একথা বলেন।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অন্যান্যের মধ্যে এসময় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের পরিচালক (ইনোভেশন) মোস্তাফিজুর রহমান এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক চন্ডি দাস কুণ্ডু, কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. জহির রায়হানসহ ১৪টি কৃষি অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালকবৃন্দ ও উপপরিচালক বৃন্দ, উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ কৃষি মন্ত্রণালয়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সহ কৃষি সংক্রান্ত সকল প্রতিষ্ঠান এবং এটুআই প্রোগ্রামের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ ও বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, এটুআই ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে সারা দেশের কৃষি সম্প্রসারণ কর্মীদের আন্তঃযোগাযোগের মাধ্যমে দক্ষতা উন্নয়ন ও আধুনিক কৃষি সেবাকে বহুমাত্রিকতা দেবার লক্ষ্যে একটি কার্যকর প্ল্যাটফর্ম তৈরী করা হয়েছে, যার নাম 'কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন'। সচিবালয়ে অবস্থিত কৃষি মন্ত্রণালয় এর সভাকক্ষে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে কৃষি মন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এই সেবা পরীক্ষামূলকভাবে চালু করেন।

দেশের ১৪ টি কৃষি অঞ্চলের ১৪ টি উপজেলায় এবং কুষ্টিয়া জেলার সকল উপজেলায় ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে একযোগে 'কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন' এর ১ মাসব্যাপী পাইলটিং কার্যক্রম চালু করা হয়। কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়নে কৃষক, কৃষি সংগঠন, প্রশিক্ষণ, প্রদর্শনী, হাট বাজার, ডিলার এবং কৃষি জাত সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য থাকবে। এর মাধ্যমে সারা বাংলাদেশের ৮০০ সম্প্রসারণ কর্মীসহ প্রায় ১২০০ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মচারী কৃষিমন্ত্রীর সাথে সরাসরি যুক্ত হন।

ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে একযোগে এত বেশী অফিসারের যুক্ত হওয়া বাংলাদেশের কৃষিক্ষেত্রে একটি যুগান্তকারী ঘটনা।  পরবর্তীতে এ বাতায়নের সাথে সম্পৃক্তকরণের লক্ষ্যে ১৯ টি উপজেলায় মোট ১৯ টি কৃষক সেমিনার করা হবে, যেখানে ৭০০ এর অধিক কৃষক সমাবিষ্ট হবেন।  পাশাপাশি, মাসব্যাপী এ কর্মকর্তা ১৯টি উপজেলার ৫০০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও ৫০০ জন কৃষককে প্রশিক্ষিত করে তোলার উদ্দেশ্যে প্রশিক্ষণ  পরিচালনা করা হবে।