Friday, 24 November 2017

 

বাংলাদেশ কীটতত্ত্ব সমিতির ১০ম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:বাংলাদেশ কীটতত্ত্ব সমিতির ১০ম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন গাজীপুরের বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বারি) কাজী বদরুদ্দোজা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার ১১ নভেম্বর দুপুরে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি বলেন বাংলাদেশে কৃষিতে যে পরিমাণ গবেষণা হওয়া উচিত; কিন্তু তা এখনো হয়নি। আমাদের কৃষি খাত আজ বহুবিধ চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। আবাদি জমির পরিমাণ কমে যাওয়া, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, বৈশ্বিক উষ্ণায়ন, কৃষি উৎপাদন ব্যয় বৃদ্ধি ইত্যাদি কৃষির অগ্রগতিকে বাধাগ্রস্ত করছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রতিবছর দেশে ৩০-৫২ শতাংশ শস্য কীট-পতঙ্গের আক্রমণে নষ্ট হয়। বিভিন্ন পোকা-মাকড় দমনের জন্য আমাদের কৃষকরা নির্বিচারে বিষাক্ত কীটনাশক প্রয়োগ করছেন, যা জীববৈচিত্র্য ধ্বংসসহ জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশের উপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হচ্ছে। যা আমাদের জন্য অত্যন্ত উদ্বেগজনক। এজন্য বিজ্ঞানীদের এমন প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও প্রয়োগ করা উচিত যা আমাদের জনস্বাস্থ্য তথা পরিবেশ রক্ষা পাবে।

তিনি আরো বলেন, দেশে নারীদের জন্য ‘তথ্য আপা’ নামে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। আগামী জানুয়ারিতে ওই প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু হবে। এ প্রকল্পের আওতায় কর্মীরা দেশের জেলা, উপজেলা ও গ্রাম পর্যায়ের প্রতিটি ঘরে গিয়ে নারীদেরকে কৃষি, স্বাস্থ্য ও শিক্ষাসহ বিভিন্ন তথ্যের বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা দেবেন। যাতে তারা দেশ ও নিজেদের ভাগ্যোন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে।

বাংলাদেশ কীটতত্ত্ব সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. মাহবুবর রহমানের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গাজীপুরের বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মো. শোয়েব হাসান, কীটতত্ত্ব সমিতির উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মোনাওয়ার আহমাদ ও এছাড়াও স্বাগত বক্তব্য ও মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কীটতত্ত্ব সমিতির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও কীটতত্ত্ব বিভাগের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. সৈয়দ নূরুল আলম।

অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন ড. দেবাশীষ সরকার।

সম্মেলনে কীটতাত্ত্বিক গবেষণা ও উন্নয়নে অবদান রাখায় কীটতত্ত্ববিদ ড. মুহাম্মদ আব্দুল হামিদ মিয়াকে ‘বিইএস স্বর্ণপদক-২০১৭’ দেয়া হয়। এছাড়া বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, গাজীপুরের কীটতত্ত্ব বিভাগের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আখতারুজ্জামান সরকার ও ড. মো. দেলোয়ার হোসেন প্রধানকে বিদেশি ক্যাটাগরিতে এবং বশেমুরকৃবি-এর সহযোগী অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমান ও নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সারোয়ারকে দেশি ক্যাটাগরিতে বেস্ট পিএইচডি থিসিস অ্যাওয়ার্ড-২০১৭ প্রদান করা হয়।

সম্মেলনে দেশের বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতত্ত্ববিদ, বিজ্ঞানী ও প্রতিনিধিরা অংশ নেন। সম্মেলনের শেষ পর্বে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।