Saturday, 21 April 2018

 

বারি’র মসলা গবেষণা কেন্দ্র, বগুড়া ৩৪ টি মসলার জাত উদ্ভাবন করেছে:কৃষিমন্ত্রী

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মসলা গবেষণা বগুড়া কেন্দ্র এ পর্যন্ত ১৫টি মসলা জাতীয় ফসলের ৩৪টি জাত, ৮৪টি উৎপাদন প্রযুক্তি এবং ১৫টি ফসল সংগ্রহোত্তর প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে। ৮ ফেব্রুয়ারী ফ্রেুয়ারী সংসদে সরকারি দলের সদস্য এম আবদুল লতিফের এক প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমানে কৃষক পর্যায়ে এসব জাত সম্প্রসারিত হচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, উদ্ভাবিত জাতের মধ্যে পেঁয়াজের ৫টি, মরিচের ৩টি, রসুনের ৪টি, আদার ৩টি, হলুদের ৫টি, ধনিয়ার ২টি, মেথীর ২টি, কালোজিরার ১টি, গোলমরিচের ১টি, পাতা পেঁয়াজের ১টি, আলুবোখারার ১টি, বিলাতী ধনিয়ার ১টি, পানের ২টি, মৌরির ২টি ও দারুচিনির ১টি জাত রয়েছে।

তিনি বলেন, ওই প্রযুক্তিসমূহ মাঠ পর্যায়ে কৃষক ও সংশ্লিষ্টদের হাতে পৌঁছানোর জন্য বুকলেট, লিফলেট, প্রশিক্ষণ ম্যানুয়াল, ডাইরেক্টরিসহ ২২টি প্রকাশনা প্রকাশিত হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য গত ৫ বছরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কৃষকসহ ৫ হাজার ৬শ’ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। মতিয়া চৌধুরী বলেন, কৃষক উচ্চ ফলনশীল জাত ও উৎপাদন প্রযুক্তির ব্যবহার এবং বর্তমান সরকারের বলিষ্ঠ কর্মপরিকল্পনার পাশাপাশি স্বল্প সুদে ঋণ প্রদান করায় মসলা চাষে এ সাফল্য এসেছে।

তিনি বলেন, মসলা জাতীয় ফসলের অর্জিত উৎপাদন অব্যাহত রেখে এর উপর উচ্চমাত্রার গবেষণা কার্যক্রম জোরদার করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলেই কৃষি মন্ত্রণালয় ‘বাংলাদেশ মসলা জাতীয় ফসলের গবেষণা জোরদারকরণ’ প্রকল্প অনুমোদন করেছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ওই প্রকল্পের মাধ্যমে মসলার নতুন নতুন জাত উদ্ভাবনের পাশাপাশি প্রজনন বীজ উৎপাদন, কৃষক প্রশিক্ষণ, প্রদর্শনী খামার স্থাপন, প্রচার প্রচারণাসহ জাত সম্প্রসারণের বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।-বাসস