Thursday, 19 July 2018

 

টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতে দরকার সমন্বিত কাজ-সিনিয়র কৃষি সচিব

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতের জন্য সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। কাউকে পিছিয়ে রেখে উন্নয়নকে টেকসই করা যাবে না। পাশের বাসায় অভাবী লোক রেখে আপনিও নিরাপদ থাকতে পারবেন না। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে মঙ্গলবার (২৭ মার্চ) রাজধানীর খামার বাড়ির আ. কা. মু. গিয়াস উদ্দীন মিলকী অডিটরিয়ামে ‘এসডিজি’( টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য) বাস্তবায়নে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ভূমিকা ও করণীয়’ শীর্ষক দিনব্যাপি সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্ এসব কথা বলেন।

এসডিজি অর্জনে তাগিদ দিয়ে সিনিয়র সচিব বলেন, এসডিজির লক্ষ্য অনুযায়ী সমাজের সব ধরনের দারিদ্র্য বিলোপ এবং ক্ষুধা মুক্তির জন্য দেশের খাদ্য উৎপাদন দ্বিগুন করতে হবে। এজন্য কৃষির সম্প্রসারণ ও গবেষণার কাজকে উন্নত এবং গতিশীল করতে হবে। সরকারের কার্যকর উদ্যোগে মিলিনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল (এমডিজি) বাস্তবায়নের সাফল্যে ৪৭ বছরে বাংলাদেশে ধান উৎপাদন বেড়েছে তিনগুন এবং শাকসবজি ও ফলের উৎপাদন বেড়েছে দ্বিগুন।

তামাক চাষের বিষয়ে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্ বলেন, বাংলাদেশের কৃষক স্বাধীন। সরকার কৃষকের স্বাধীনতা হরন করতে পারে না এবং করেওনি। কৃষকের দায় পড়েনি ক্রমাগত লোকসান দিয়ে ধান চাষ করবে। বিকল্প না দিয়ে কৃষককে তামাক চাষ না করার জন্য বাধ্য করা যাবে না। তামাক চাষ সরকার ব্যান্ড করেনি। তামাক চাষের জন্য সরকার কোনো রকমের সহায়তা ও উৎসাহ দিচ্ছে না। বরং তামাক চাষ কমাতে সরকার নানা প্রচেষ্টা চালিয়ে আসার কারনে তামাক চাষ কমে আসছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মোহাম্মদ মহসীনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ নজমুল ইসলাম, হর্টিকালচার উইং এর পরিচালক কৃষিবিদ মিজানুর রহমান। এসময় সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আঞ্চলিক ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ।