Sunday, 22 April 2018

 

‘জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাকৃবির মাৎস্য বিজ্ঞান অনুষদের ফিশারিজ ডিগ্রী শক্তিশালীকরণ’-শীর্ষক কর্মশালা

কৃষিবিদ দীন মোহাম্মদ দীনু, বাকৃবি থেকে:বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্য বিজ্ঞান অনুষদ কর্তৃক আয়োজিত হেকেপ প্রকল্পের আওতায় ‘জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাকৃবির শিক্ষণ ও শেখার উন্নতির মাধ্যমে  মাৎস্য বিজ্ঞান অনুষদ এর  ফিশারিজ ডিগ্রী শক্তিশালীকরণ’ শীর্ষক কর্মশালা  ৪ এপ্রিল ২০১৮ অনুষদীয় সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

প্রকল্পের সাব প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রফেসর ড. সুভাষ চন্দ্র চক্রবর্তী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ আলী আকবর। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ জসিমউদ্দিন খান, বাকৃবির মাৎস্য বিজ্ঞান অনুষদেও ডীন প্রফেসর ড. গিয়াস উদ্দিন আহম্মেদ,উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা কমিটির কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন মাখার পরিচালক প্রফেসর ড. মনোরঞ্জন দাস, ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড.এস. ডি. চৌধুরী।

কর্মশালায় মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মাৎস্য বিজ্ঞান প্রফেসর ড মোঃ জোয়ার্দার ফারুক আহম্মেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ আলী আকবর বলেন, মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে হেকেপ প্রকল্পের মাধ্যমে আজকের কর্মশালা ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে হলে আমাদের কোর্স কারিকুলাম আধুনিকায়নের কোন বিকল্প নেই।

পরে মুক্ত আলোচনায় বিষয়ের উপর অনুষদীয় শিক্ষকগণ, গবেষক, খামারীগণ বক্তব্য রাখেন। আলোচনায় সমুদ্রবিজ্ঞান এবং ফিস ফার্মাকোলোজি নিয়ে আলাদা বিভাগ খোলার সুপারিশ করা হয়। এছাড়াও আলোচনায় শিক্ষকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্যবিজ্ঞানে শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে মতামত দেন। এর মধ্যে মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদে ইন্টার্নশিপ চালু করা, সমুদ্রবিজ্ঞান এবং ফার্মাকোলোজি নিয়ে আলাদা বিভাগ করা, পর্যাপ্ত শ্রেণীকক্ষের ব্যবস্থা করা, স্নাতকে গবেষণা সংযুক্ত করাসহ প্রায় অর্ধশতাধিক সমস্যা নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডীন, বিভিন্ন বিভাগের প্রধান, বিভাগীয় শিক্ষকবৃন্দ ও বিএফআরআই এর বিজ্ঞানীসহ আমন্ত্রিত অতিথিগণ অংশগ্রহণ করেন।