Sunday, 22 April 2018

 

নিরাপদ ডিম ও ব্রয়লার উৎপাদনে খামারীরা এখন অধিক সচেতন-ডা. কামরুজ্জামান

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:নিরাপদ ডিম ও ব্রয়লার উৎপাদনে খামারীরা এখন অধিক সচেতন। দেশের এনিম্যাল হেলথ সেক্টরে প্রাকৃতিক পন্য ব্যবহারের মাধ্যমে পোল্ট্রি খামারীরা এখন নিরাপদ পোল্ট্রিজাত পন্য উৎপাদন করছে। এন্টিবায়োটিক এর বিকল্প হিসেবে এসব পন্যের ফলাফলও বেশ আশাব্যঞ্জক। এসব দিক বিবেচনা করে খামারীরাও বর্তমানে এ ধরনের এনিম্যাল হেলথ্ ব্যবহারে ঝুঁকছেন।

১৬ এপ্রিল সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ঢাকা রিজেন্সিতে বায়োল্যাব আয়োজিত "Strategies for using of Phytogenic Extract for the Improvement & Boost up Performance of Poultry Health" শীর্ষক এক সেমিনারে বায়োল্যাবের সিইও ডা. মো: কামরুজ্জামান এমনটাই জানালেন।

তিনি বলেন অনেক সময় ভোক্তারা বিভ্রান্তির কারণে ফার্মের ডিম বা ব্রয়লার গ্রহণে অনীহা প্রকাশ করেন। তবে দেশের খামারীদের উৎপাদিত ডিম ও ব্রয়লার এখন অনেকটাই নিরাপদভাবে উৎপাদিত হচ্ছে। তিনি আশা করেন সকল শ্রেনির ভোক্তাদের মাঝে এ ধরনের সচেতনতা তৈরি করতে সরকারী-বেসরকারী সকল পর্যায়ে তথ্য ভিত্তিক প্রচারনা চালাতে হবে। এ ধরনের কাজে সকলে এগিয়ে আসলে দেশের কর্মসংস্থানের দ্বিতীয় বৃহত্তম খাতটি অর্থনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে আরো ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

সেমিনারে "Strategies for using of Phytogenic Extract for the Improvement & Boost up Performance of Poultry Health"-শীর্ষক মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন igusol এর টেকনিক্যাল ম্যানেজার Jesus Suarez Ph.D;

স্পেনের খ্যাতনামা ন্যাচারাল এনিম্যাল নিউট্রিশন কোম্পানীর এ বিশেষজ্ঞ বলেন ন্যাচারাল পণ্যের মাধ্যমে ডিম ও ব্রয়লার উৎপাদন করতে তারা সব সময় গবেষণা ও উন্নয়নে জোর দিয়ে থাকেন। কেন প্রাকৃতিক পণ্য ব্যবহার করতে হবে? কিভাবে এ ধরনের পণ্য পোল্ট্রিতে কাজ করে তা উপস্থাপন করেন এ বিশেষজ্ঞ।

এসময় তিনি igusol এর উৎপাদিত EMRALD, IGUSafe, Solvance পণ্যগুলি সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত ধারনা প্রদান করেন। Jesus Suarez Ph.D আশা প্রকাশ করে বলেন এ ধরনের গবেষণাধর্মী নিউট্রিশনাল পণ্য বাংলাদেশের পোল্ট্রি শিল্পে ব্যবহার করে উদ্যোক্তারা সফলতা পাবেন।

সেমিনারে ডা. এন,সি, বনিক, ডা. বিধান চন্দ্র দাশ, ডা. অখিল চন্দ্র প্রমুখ খ্যাতনামা পোলট্রি বিশেষজ্ঞরা বক্তব্য রাখেন। তারা বলেন এ ধরনের কারিগরি সেমিনার নিঃসন্দেহে পোল্ট্রি সেক্টরের জন্য অত্যন্ত ইতিবাচক। ভোক্তাদের মাঝে বিভ্রান্তি দূর করা দরকার। এজন্য পোল্ট্রি খামারিদের ফাইটোজেনিক এক্সট্র্যাক্ট সমৃদ্ধ পণ্য ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করার উপর জোর দেন এ বিশেষজ্ঞরা। সেমিনারে আগত পোল্ট্রি কনসালট্যান্টরা বলেন দেশের খামারিদের মাঝে এসব পন্য এখন দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে। এ ধরনের সেমিনার খামারী, উদ্যোক্তা তথা ভোক্তাদের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।

সেমিনারের শেষ দিকে বর্তমান প্রেক্ষাপটকে বিবেচনা করে আগতরা মত বিনিময় করেন। যেখান থেকে এ সেক্টরের সমস্যাগুলিকে আরো গভীরভাবে তলিয়ে দেখে আগামীতে করনীয় সম্পর্কে আলোচনা করেন আগতরা।

সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজন নিরাপদ পুষ্টি সম্পন্ন খাবার। আর এ পুষ্টির অন্যতম যোগানদাতা হল প্রানীজ আমিষ যার অধিকাংশ সরবরাহ করে থাকে পোল্ট্রিজাত পণ্য। দেশে নিরাপদ পোল্ট্রি মাংস ও ডিম উৎপাদনে যে সমস্ত কোম্পানী কাজ করে যাচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম হলো বায়োল্যাব। প্রানিজ আমিষের সবচেয়ে সহজলভ্য উৎস ডিম ও ব্রয়লার অধিক হারে গ্রহণ করে মেধাবী জাতি হিসেবে বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে এমনটাই প্রত্যাশা সেমিনারে আগত অতিথিদের।

সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন ডাঃ সাইফুল বাসার। সবশেষে আগত অতিথিরা এক নৈশভোজে অংশগ্রহন করেন।