Friday, 15 December 2017

 

দেশের উদ্ভাবিত পণ্যগুলো নাম ব্যবহার করে ব্যবসা করছে বিদেশিরা-বাকৃবিতে মেধাস্বত্ত্ব অধিকার বিষয়ক সেমিনারে কৃষি বিজ্ঞানীরা

আবুল বাশার মিরাজ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি►আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাংলাদেশের কৃষি বিজ্ঞানীরা বিভিন্ন ফসলের জাত, মাছের প্রজনন ও গবাদী পশুর টিকা উদ্ভাবন করে। যা বিশ্ব দরবারে আকর্ষণীয় ও মূল্যবান। কিন্তু দেশের ভেতর মেধাস্বত্ত্ব প্রতিষ্ঠান না থাকায় বিদেশিরা আমাদের উদ্ভাবিত পণ্যগুলো নিজেদের নামে মেধাস্বত্ত্ব (প্যাটেন্ট) করে ব্যবসা করছে। ফলে আমাদের দেশের প্রান্তিক পর্যায়ের উৎপাদক ও ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এতে অর্থনৈতিকভাবে আমরা লাভবান হতে পাচ্ছি না। দেশীয় পণ্য হওয়ার পরও মেধাস্বত্তের¡ অভাবে জামদানি শাড়ি, ইলিশসহ অনেক পণ্যেও মেধাস্বত্ত্ব বিদেশিদের হাতে। এজন্য বাংলাদেশী পণ্যগুলোর অতিদ্রুত মেধাস্বত্ত্ব অধিকার বাস্তবায়ন অতিদ্রুত করা উচিত।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) সকাল ১০ টার দিকে সৈয়দ নজরুল ইসলাম সম্মেলন কক্ষে মেধাস্বত্ত্ব অধিকার বিষয়ক প্রকল্পের সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. আলী আকবর এ কথা বলেন।

সেমিনারের শুরুতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মেধাস্বত্ত্ব অধিকার বিষয়ক প্রকল্পের উপ প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান। তিনি বলেন, দেশে কৃষি ক্ষেত্রে বিভিন্ন উদ্ভাবন মেধাস্বত্ত্ব না করায় দিনদিন হারিয়ে যাচ্ছে। দেশে মেধাস্বত্ত্ব দেওয়ার কোন প্রতিষ্ঠান থাকলে উদ্ভাবনগুলো প্রন্তিক পর্যায়ে নেওয়া সম্ভব। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইস্টাবিলিশষ্টমেন্ট অব টেকনোলজি ট্রার্ন্সফার অফিস প্রকল্পের থিংক ট্যাঙ্ক অধ্যাপক ড. মো. জসিমউদ্দিন খান। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে অধ্যাপক ড.সুভাষচন্দ্র চক্রবর্তী, সম্মানিত অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই) মহাপরিচালক ড.ইয়াহিয়া মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।