Thursday, 23 November 2017

 

কৃষির আধুনিক প্রযুক্তি গণমাধ্যমের সহায়তায় কৃষকের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দেয়ার আহবান

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:কৃষির আধুনিক প্রযুক্তি গণমাধ্যমের সহায়তায় কৃষকের দোড়গোড়ায় সহজলভ্য করে পৌঁছে দেয়ার আহবান জানান কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রসারণ) জনাব মো. মোশারফ হোসেন। ১৮ সেপ্টেম্বর সোমবার কৃষি তথ্য সার্ভিস, খামারবাড়ি, ঢাকা এর কনফারেন্স রুমে কৃষি মিডিয়া ভিত্তিক ত্রৈমাসিক প্রান্তিক সভা অনুষ্ঠিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, কৃষিতে গবেষণার মাধ্যমে পাওয়া প্রযুক্তি এবং দেশের নানা অঞ্চলে মাঠের সাথে সম্পৃক্ত কৃষকগণের কর্মের মধ্য দিয়ে পাওয়া প্রযুক্তি সময় মতো পৌঁছে দিতে হবে। তাহলে আমাদের টেকসই কৃষি উন্নয়ন নিশ্চিত হবে।

প্রত্যন্ত চরে বন্যা পরবর্তী প্রাণির স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প পরিচালনায় “মডেল লাইভস্টক অ্যাডভান্সমেন্ট ফাউন্ডেশন”

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:গত ৯ই সেপ্টেম্বর সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর থানার ২টি প্রত্যন্ত চরে বন্যা পরবর্তী প্রাণির স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক একটি হেলথ্‌ ক্যাম্পে প্রাণির চিকিৎসা ও ওষুধ প্রদান করলো “মডেল লাইভস্টক অ্যাডভান্সমেন্ট ফাউন্ডেশন”। যানজট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করে একদল তরুণ, উদ্যমী স্বেচ্ছাসেবী মানুষের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিক প্রচেষ্টায় পরবর্তী প্রাণির চিকিৎসা সেবা দুর্গম চরের বন্যা পীড়িতদের মাঝে কিছুটা হলেও স্বস্থি এনে দিয়েছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ২৩তম বৈঠক অনুষ্ঠিত

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২৩তম বৈঠক ১৭ সেপ্টেম্বর রবিবার কমিটির সভাপতি মীর শওকাত আলী বাদশার সভাপতিত্বে সংসদভবনে অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে পশু জবাই ও মাংসের মাননিয়ন্ত্রণ আইন ২০১১ এর বাস্তবায়ন ও প্রায়োগিক ফলাফল, প্রতি জেলায় মডেল উন্নত পোনা উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপন, বাংলাদেশ মেরিন ফিসারিজ ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রকল্পের আওতায় মৎস্যজরিপ কার্যক্রম অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনার পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের অধীন সকল দপ্তরের শূন্যপদ পূরণের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে কমিটি সুপারিশ করে।

বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সাড়ে ৫ লাখ কৃষক পাবেন কৃষি প্রণোদনা

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি কৃষির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে কৃষি প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। এই প্রণোদনার আওতায় ৫ লাখ ৪১ হাজার ২০১ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষককে ৫৮ কোটি ৭৭ লাখ ১৯ হাজার ৩১৫ টাকার বীজ ও রাসায়নিক সার দেয়া হবে। রবিবার কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এ তথ্য জানান।

বিনা উদ্ভাবিত ফসলের সম্প্রসারণযোগ্য জাতগুলো ছড়িয়ে যাক কৃষকের মাঠে মাঠে-ড. মো. আমজাদ হোসেন

কৃষি ফোকাস:বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) কর্তৃক “বিনা উদ্ভাবিত ডাল, তেল এবং দানাজাতীয় ফসলের সম্প্রসারণযোগ্য জাতসমূহের পরিচিতি ও চাষাবাদ পদ্ধতি এবং নতুন শস্যবিন্যাস অর্ন্তভূক্তিকরণ” বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। ১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার দিনব্যাপী এ কর্মশালাটি পুষ্টি নিরাপত্তার লক্ষ্যে কৃষিতাত্ত্বিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ডাল, তেলবীজ এবং দানাজাতীয় ফসলের উচ্চফলনশীল এবং প্রতিকূলতা সহনশীল জাত উদ্ভাবন কর্মসূচির অর্থায়নে সুনামগঞ্জের বিনা উপকেন্দ্রের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়।

কৃষি প্রযুক্তি কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিন-কৃষিবিদ মোঃ আব্দুল আজিজ

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশাসন ও অর্থ উইংয়ের পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ আব্দুল আজিজ বিসিএস (কৃষি) ক্যাডারে নব-নিয়োগ প্রাপ্ত অফিসারদের মাঠ কার্যক্রমে বেশি বেশি অংশগ্রহণ করে কৃষি প্রযুক্তি কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার জন্য আহবান জানিয়েছেন। তিনি বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের প্রশিক্ষণ ও মাঠ দিবসে কৃষকদের চাহিদা ভিত্তিক বাস্তবমুখী প্রশিক্ষণ পরিচালনা ও তথ্য প্রদানের জন্য সকল স্তরের অফিসারদের অনুরোধ করেন। ০৯ সেপ্টেম্বর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, খুলনার সভাকক্ষে চলমান কৃষি সম্প্রসারণ কার্যক্রম শীর্ষক মতবিমিয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

টেকসই কৃষি উৎপাদনের জন্য চাই টেকসই কৃষি প্রযুক্তির সম্প্রসারণ-মোঃ গোলাম মারুফ

কৃষি ফোকাস ডেস্ক:কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মোঃ গোলাম মারুফ বলেছেন, টেকসই কৃষি উৎপাদনের জন্য প্রয়োজন টেকসই কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারণ। গবেষনা উদ্ভাবিত সকল প্রযুক্তি সকল কৃষি পরিবেশ অঞ্চলের জন্য উপযোগী নয়। এ বিষয়টি মাথায় রেখে উৎপাদন বৃদ্ধিতে নজর দিতে হবে। স্থানীয় কৃষি ঐতিহ্যের সাথে মিল রেখে টেকসই প্রযুক্তির সফল সম্প্রসারণ করতে হবে। পরিবর্তিত জলবায়ু পরিস্থিতির বিরূপ প্রতিক্রিয়া মাথায় রেখে দূর্যোগ পরবর্তী ফসল উৎপাদন ব্যবস্থা স্বাভাবিক করার জন্য সকলের সাথে সম্বন্বয় করে কাজ করতে হবে।

কলাগাছের সিগাটোকা রোগের বিস্তারিত

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কলা একটি অর্থকরী ফসল যা কৃষকরা নগদমূল্যে বিক্রয় করে থাকেন। তবে যে সব রোগের কারণে কলা চাষীরা অর্থনৈতিক ক্ষতির মুখে পড়েন তাঁর মধ্যে অন্যতম একটি রোগ হলো কলা গাছের সিগাটোকা রোগ। কলা গাছের পাতায় হলুদ রংয়ের গোলাকার বা ডিম্বাকৃতি দাগ পড়ে ধীরে ধীরে পাতা শুকিয়ে মারা যাচ্ছে কি? যদি এমন হয় তাহলে বুঝবেন কলাগাছে সিগাটোকা রোগ হয়েছে। এ রোগ গাছের পরিত্যক্ত পাতায় বেঁচে থাকে এবং বাতাসের মাধ্যমে সুস্থ গাছে ছড়ায় তাই এ রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত জানার প্রয়োজন রয়েছে কলা চাষীদের।।

এ রোগ চিনবেন কিভাবে?

  • পাতার শিরা বরাবর হালকা হলুদ বা সবুজাভ হলুদ লম্বাটে দাগ পড়ে।
  • দাগগুলো বড় হলে চোখের আকৃতি ধারণ করে।
  • দাগগুলো আস্তে আস্তে কালো হয়ে যায়।
  • দাগগুলো আস্তে আস্তে বড় হতে থাকে এবং কালো হয়ে পাতা আগুনে পুড়ে যাওয়ার মত মনে হয়।
  • ধীরে ধীরে পাতার বোটা আক্রান্ত হয় এবং পরে বোটা শুকিয়ে ভেঙে পড়ে গাছ বরাবর ঝুলে থাকে
  • আক্রমন বেশি হলে গাছের সমস্ত পাতাই শুকিয়ে যায় এবং গাছ মারা যায়।
  • ব্যাপকভাবে আক্রান্ত বাগান দূর থেকে দেখলে আগুনে ঝলসে যাওয়ার মত মনে হয়।

এ রোগ কি ক্ষতি করে?

  • কলার ফলন কমে যায়
  • কলার আকৃতি ছোট হয়
  • কলার গুনাগুন ও মিষ্টতা কমে যায়। ফলে বাজারমূল্য কমে যায়।
  • অধিক আক্রমনে বাগান ধ্বংস হয়ে যায়।

রোগ দমন বা ব্যবস্থাপনা:

  • জমি পরিষ্কার পরিছন্ন রাখুন
  • জমিতে পরপর ২-৩ বছরের বেশি কলার চাষ করবেন না
  • যথাযথভাবে সেচ ও পানি নিষ্কাশণ করুন
  • অতিরিক্ত ইউরিয়া সার ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন
  • মরা/পচা পাতা কেটে বাগানে রোদ ও আলো বাতাস প্রবেশের ব্যবস্থা করুন
  • আক্রান্ত পাতা সংগ্রহ করে মাটিতে পুঁতে ফেলুন অথবা পুড়িয়ে ফেলুন।
  • আক্রমণের প্রাথমিক অবস্থায় বর্দোমিক্সারের (১০০ গ্রাম তুঁতের সাথে ৫ লিটার পানি এবং ১০০ গ্রাম কলিচুনের সাথে ৫ লিটার পানি মিশিয়ে মিশ্রণগুলোকে পরে একত্রে করতে হবে) সাথে তিসির তেল (১০ লিটারে ২০০ মিলিলিটার) মিশিয়ে ১ম বার স্প্রে করার ৭ দিন পর ২ বার স্প্রে করে এ রোগ দমন করা যায়।
    তবে রোগের মাত্রা বেশি হলে ১ম বার স্প্রে করার ৩ দিন পর ২ বার, তার পর ৩য় বার এবং ২১ দিন পর ৪র্থ বার স্প্রে করতে হবে।

সতর্কতা: যে কোন বালাইনাশক ব্যবহার করার সময় প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিন। প্যাকেট বা বোতলের গায়ে লেখা পরামর্শ অবশ্যই মেনে চলতে হবে। প্রয়োজনে আপনার নিকটস্থ কৃষি অফিসে কৃষি কর্মকর্তার সহায়তা নিন।

রংপুরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে রোপা আমন ধানের চারা বিতরণ

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনষ্টিটিউট রংপুর আঞ্চলিক কার্যালয় প্রাঙ্গনে ১২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মাঝে রোপা আমন ধানের চারা বিতরণ করা হয়। ব্রি আঞ্চলিক কার্যালয় প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রধান  ড. মো. আবু বক্কর সিদ্দিক সরকারের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রংপুর জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপপরিচালক মো. জিয়াউল হক।

"বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে সরকার ছিল-আছে-থাকবে"-ছানোয়ার হোসেন এমপি

কে এস রহমান শফি, টাঙ্গাইল ঃ টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ ছানোয়ার হোসেন বলেছেন, এবারের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে "সরকার ছিল, আছে এবং থাকবে"। বন্যা শুরুর পরই সরকারের পক্ষ থেকে বন্যাকবলিতদের শুকনা খাবার, চালসহ সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হয়েছে এবং এখনো হচ্ছে। খুব শীঘ্রই হতদরিদ্রদের ১০টাকা কেজি করে চাল দেয়া শুরু হবে। এখন কৃষকদের ধানের চারা দেয়া হচ্ছে। আগামীতে ফসল আবাদের জন্য প্রণোদনা হিসেবে বীজ, সারও দেয়া হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার কৃষক বান্ধব সরকার। কৃষির ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হবে।