Thursday, 23 November 2017

 

কলার পাতা ও ফলের বিটল পোকা দমনে করণীয়

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:আপনার কলা গাছের পাতা ও ফলের উপর কি কালো রংয়ের দাগ দেখা যাচ্ছে? এক ধরনের বিটল পোকার আক্রমণে এ দাগ হয়। এর ফলে কলার বাজারমূল্য কমে যায় যা কলা চাষীদের আর্থিক ক্ষতির মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। তবে এসব পোকা চিনলে ও তাদের দমন ব্যবস্থা জানা থাকলে এ থেকে সহজেই রেহাই পেতে পারেন কলা চাষীরা।

কিভাবে এ পোকা চিনবেন?

  • বয়স্ক পোকাটির উপরের দিকটা খুবই শক্ত এবং মাথায় লম্বা দুটি শুড় থাকে।
  • পোকার মাথা নীল, পাখা বাদামী (অথবা মাথা বাদামী এবং পাখা নীল)

কিভাবে ক্ষতি করে?

  • কীড়া এবং পূর্ণবয়স্ক পোকা উভয়ই কলাগাছের ক্ষতি করে
  • কীড়া অবস্থায় কলাগাছের শিকড় খায়
  • পূর্ণবয়স্ক পোকা প্রথমে কলাগাছের কচি হলদে পাতা কুরে কুরে খায়, ফলে পাতাতে কালো দাগ পড়ে।
  • পাতা বড় হলে দাগও বড় হয়, ফলে গাছের খাদ্য তৈরি ব্যাহত হয়।
  • পরে কলার মোচা বের হলে পাতা ছেড়ে কচি কলায় আক্রমন করে, এতে গাছে কলা কম ধরে।
  • কলা বড় হওয়ার সাথে সাথে দাগগুলো আকারেও বড় হয়, ফলে কলার বাজারমূল্য কমে যায়।

কিভাবে এ পোকা দমন করা যাবে?

  • কলার বাগান পরিষ্কার পরিছন্ন রাখুন, বিশেষ করে পুরাতন গাছের গোড়া, মরা পাতা ইত্যাদি অপসারণ করতে হবে।
  • পর্যাক্রমিক ফসল চাষ করুন (কলা ২ বছর, তার পর অন্যান্য ফসল ৩ বছর, তারপর আবার কলা)
  • কলার মোচা বের হওয়ার সাথে সাথে ৪২ ইঞ্চি লম্বা ও ৩০ ইঞ্চি প্রস্থের দুই মুখ খোলা মশারির নেট দিয়ে কলার মোচা ঢেকে দিন।
  • মোচা বের হওয়া আগে ১ বার, মোচা বের হওয়ার সাথে সাথে ১ বার, ছড়িতে কলা বের হওয়ার সাথে সাথে ১ বার এবং সম্পূর্ণ কলা বের হওয়ার পর ১ বার মোট চারবার স্বল্পমাত্রার কীটনাশক (ডেসিস ২.৫ ইসি প্রতি ১০ লিটারে ২ কর্ক মিশিয়ে) স্প্রে করে এ পােকা দমন করা যায়।
  • একবার আক্রমণ দেখা দিলে দমন করে তেমন লাভ হয় না, কারণ এ পোকা কলা বের হওয়ার আগেই কলার ক্ষতি সাধন করে।

সতর্কতা: যে কোন বালাইনাশক ব্যবহার করার সময় প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। প্যাকেট বা বোতলের গায়ে লেখা পরামর্শ অবশ্যই মেনে চলতে হবে। প্রয়োজনে আপনার নিকটস্থ কৃষি অফিসে কৃষি কর্মকর্তার সহায়তা নিন।