Monday, 20 November 2017

 

সারম্ভরপূর্ণ ভাবে বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটির ৩য় লাইভ স্টক, অ্যাওয়ার্ড, সেমিনার ও মেলা-২০১৭ সম্পন্ন

ডেস্ক রিপোর্ট:সকলের জন্য আমিয় এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত ৩য় লাইভ স্টক অ্যাওয়ার্ড, সেমিনার এবং লাইভ স্টক ও পোল্ট্রি মেলা-২০১৭ গত ২১ অক্টোবর'২০১৭ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ডা: কাইছার রহমান অডিটরিয়ামে সফলভাবে সম্পন্ন হয়। অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী সকাল ১০ টায় বেলুন উড়িয়ে অডিটরিয়ামের সমুখভাবে আয়োজিত লাইভ স্টক ও পোল্ট্রি মেলার উদ্বোধন করেন।

এরপর প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিবৃন্দ, হলরুমে উপস্থিত হয়ে আসন গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মি: নারায়ন চন্দ্র চন্দ এম.পি.। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আলী আকবর। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ আইনুল হক, বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষনা প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালক ড. তালুকদার নূরুন্নাহার, এনিমেল হেলথ ডিভিশন রেনেটা লি: এর জেনারেল ম্যানেজার জনাব সিরাজুল হক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের, ভেটেরিনারী এন্ড এনিমেল সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এস এম কামরুজ্জামান, অনুষ্ঠান পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ও জার্নালের প্রধান এডিটর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. এম, খালেকুজ্জামান।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সকলের জন্য আমিষ এর Key Note-পেপার উপস্থাপক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদের ডীন, প্রফেসর ড. প্রিয়মোহন দাস। অনুষ্ঠানের সভাপতি বাংলাদেশ লাইভ স্টক সোসাইটির সভাপতি ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি ও এমিমেল সায়েন্সেস বিভাগের প্রফেসর ড. জালাল উদ্দিন সরদার এবং সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি ও এমিমেল সায়েন্স বিভাগের ডেপুটি চীপ ভেটেরিনারিয়ান ড. হেমায়েতুল ইসলাম আরিফ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট কৃষি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদের প্রফেসর ড. রাশেদ হাসনাত, দিনাজপুর হাজী দানেশ কৃষি হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগের উপ-পরিচালক জনাব ডা. রেজাউল ইসলাম, রাজশাহী জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা জনাব মোঃ নিজাম উদ্দিন এবং বিভিন্ন জেলা থেকে আগত জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাবৃন্দ অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন বিভাগ ও প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও প্রতিনিধিবৃন্দ এসি আই লি: এর কর্মকর্তাবৃন্দ, খামারী, ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ, বিএলএস এর সকল সদস্যবৃন্দ, ঔষধ কম্পানির প্রতিনিধি, নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যবৃন্দ, সুধিজন ও প্রাণি সম্পদ এর সাথে জড়িত আপামর জনসাধারণ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএলএস এর সভাপতি ড. জালাল উদ্দিন সরদার ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত ও গীতা পাঠ করা হয়। এরপর অনুষ্ঠানের আহবায়ক ও জার্নালের এডিটর ড.এম খালেকুজ্জামান স্বাগত বক্তব্য পেশ করেন তিনি বক্তব্যে বলেন দুধ, মাংস, ডিম শরীরে শক্তির উৎস এই তিন যা প্রাণি সম্পদ থেকে পাওয়া যায়। বেকারত্ব  দুরীকরণ আত্মকর্মসংস্থান ও আমিষের ঘাটতি মেটাতে গবাদিপশু ও হাঁসমুরগী পালনের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি এব্যাপারে একটি ট্রাষ্ট গঠনের প্রস্তাব পেশ করেন। বিএলএস পরিচালনায়, সকলের সহযোগীতায় ট্রাষ্ঠের মাধ্যমে আর্থিক ফান্ড তৈরী করে দিয়ে প্রাণিসম্পদ উন্নয়নের ক্ষেত্রে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের মত প্রকাশ করেন।

এরপর বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক জনাব ড. হেমায়েতুল ইসলাম আরিফ বক্তব্য পেশ করেন। তিনি তার বক্তব্যে সোসাইটির বিগত দিনের সফলতা বিএলএস পরিক্রমায় লিপিবদ্ধ বিভিন্ন কার্য্যক্রম তুলে ধরেন এছাড়া তিনি রাজশাহী কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অদুরে মেহেরচন্ডি গ্রামে, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পোল্ট্রি বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. সুবাস চন্দ্র দাসের উদোগে তিতির পাখী পালন ও এর কথা উল্লেখ করেন, মেহের চন্ডি গ্রামকে লাইভ স্টক ভিলেজ তৈরীর মাধ্যমে গবাদিপশু ও হাঁসমুরগী পালন করে তাদের স্বাস্থ্য সেবা চিকিৎসা রোগ প্রতিরোধ এর ব্যবস্থা করা হবে। শুধু তাই নয় প্রতি বাড়ীতে পালিত পশু পাখীর উৎপাদিত ডিম দুধ মাংস ক্রয়- বিক্রয়ের ব্যবস্থা, খাদ্য ও ডিমের মূল্য নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত সকল দিক লক্ষ রেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেন। এ সময় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ৩য় লাইভ স্টক অ্যাওয়ার্ড  স্মরনিকা বন্ধন এবং বাংলাদেশ লাইভ স্টক জার্নালের মোড়ক উন্মোচন করেন।

Protein for All-সকলের জন্য আমিষ সংক্রান্ত Key Note পেপারের উপস্থাপক ড. প্রিয়মোহন দাস ওভারহেড প্রোজেক্টরের মাধ্যমে চমৎকার ভাবে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। আমিষ কি? উহা শরীরের জন্য কি কাজে লাগে, ঘাটতি থাকলে শরীরের কি অসুবিধা হতে পারে, অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে কি পরিমাণ ঘাটতি আছে তা কিভাবে সমাধান করা যায় চমৎকারভাবে ব্যাখ্যা করেন।

অতিথিবৃন্দের বক্তব্যের আগে প্রধান অতিথি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী ৩য় লাইভস্টক অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত বিজয়ী ব্যক্তিদের হাতে ক্রেষ্ট তুলে দেন। এবার চারটি বিশেষ কাটাগরীতে ১৪ জন এই অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন। তারা হলেন শিল্পে ড. খন্দকার আলমগীর হোসেন , লাইভস্টক গবেষণায় ড. কাজী কমরউদ্দিন, শিক্ষায় ড. কেবিএম সাইফুল ইসলাম, ভেটেরিনারি পেশায় ডা. আজমত আলী, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে ডা. জহিরুল ইসলাম, লাইভস্টক শিল্পে ডা. আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, প্রাণিসম্পদের মাঠ পর্যায় থেকে ডা. মোঃ আবদুল মান্নান, মাঠ পর্যায়ের স্বেচ্ছাসেবী থেকে এরশাদ আলী প্রামাণিক, জীববৈচিত্র্য ও বন্য প্রাণী সংরক্ষণে মোল্যা রেজাউল করিম, মিডিয়া পারসন অব দ্য ইয়ার ক্যাটাগরিতে ইলেকট্রনিক দেওয়ান সিরাজ, প্রিন্ট মিডিয়ায় ড. আয়নাল হক, প্রোমিজিং র্ফামার অব দ্যা ইয়ার ক্যাটাগরিতে শাহিন সরকার, পোল্ট্রি শিল্পে আবদুল আউয়াল হক ও সৌখিন প্রাণি পাখিতে জিলুর রহমান চৌধুরী। অ্যাওয়ার্ড প্রদান শেষে অতিথি বৃন্দের সাথে অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত ব্যক্তি বর্গ ফটোসেশনে অংশগ্রহণ করেন।

এরপর অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ এনামুল হক। তিনি পোল্ট্রি পালন ও তার ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলেন, বর্তমান মুরগীর খাদ্য ও বাচ্চার দাম বেশী হলেও বাজারে ডিম ও ব্রয়লার মুরগির মাংসের দাম তুলনামূলকভাবে অনেক কম। এব্যাপারে তিনি অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও সংশ্লিষ্ট নীতি নির্দ্ধারকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, নির্দিষ্ট নীতিমালা তৈরী করে বাচ্চার দাম ও খাদ্যের দামের সাথে সামঞ্জস্য রেখে, ব্রুয়লার মুরগি ও ডিমের দাম এমনভাবে রাখতে হবে যাতে খামারীদের লোকসান গুনতে না হয়। এরপরে শুরু হয় বিশেষ অতিথি বৃন্দের বক্তব্য সম্মানিত বিশেষ অতিথিবৃন্দ প্রাণিজ আমিষ, প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন, বিএলএস এর সফলতা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে মূল্যবান বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যের আগে অনুষ্ঠানের সভাপতি ড. জালাল উদ্দিন সরদার তার মূল্যবান বক্তব্য পেশ করেন, তিনি সোসাইটির বিভিন্ন সাফল্য প্রতিকুলতা, কার্য্যক্রম সুন্দরভাবে তুলে ধরেন। তিনি পষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান এসি আই লি. রেনেটা লি: আর্থিকভাবে সহযোগীতা ও উপহার প্রদান করায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এছাড়া বিজ্ঞাপনদাতা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা যারা বিজ্ঞাপন দিয়ে, সহযোগীতা কারেছেন তাদেরকেও কৃতজ্ঞতা জানান।

প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিবৃন্দ, আহবায়ক, Key Note-পেপারের উপস্থাপক আগত অতিথিবৃন্দ এই অনুষ্ঠান সফল্যমন্ডিত করার পিছনে যাদের অবদান রয়েছে তাদের ধন্যবাদ জানান। যারা এবছর লাইভস্টক অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছেন তাদেরকে অভিনন্দন জানিয়ে সবার মঙ্গল কামনা তার বক্তব্য শেষ করেন।

পরিশেষে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তার মূল্যবান সারগর্ভ বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি বলেন, মেধাবি জাতি গঠনে আমিষের কোন বিকল্প নাই, প্রাণি সম্পদ থেকে প্রাপ্ত আমিষের চাহিদা মেটাতে তার মন্ত্রণালয় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তাই বর্তমানে দেশ মাছ মাংস ডিমে স্বয়ংসম্পূর্ণ। রাজশাহী জেলার বিভিন্ন পোল্ট্রি ফার্মে যে ডিম উৎপাদন হয় এলাকার চাহিদা মেটানোর পর উদ্ধৃত্ত রয়েছে বলে তিনি জানান। গত ২ বছর বিদেশি পশু ছাড়াই দেশে কোরবানির চাহিদা মেটানো গেছে। তিনি বাংলাদেশ লাইভস্টক সোসাইটির সকল কাজের ভুয়সি প্রশংসা করেন। সর্বশেষে লেকচারার ডা: মোঃ রিয়াজুল ইসলাম সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠানের শেষে প্রধান অতিথি লাইভ স্টক ও পোল্ট্রি মেলা পরিদর্শন করেন।

অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে এক মনোজ্ঞা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। রেডিও টিভির শিল্পির স্থানীয় শিল্পিবৃন্দ সঙ্গীত পরিবেশন করেন। এছাড়া সহ: অধ্যাপক ড. আজিজুর  রহমান সহ পরিচালক আব্দুল্লাহ আল ফিরোজ বিএলএস কোষাধ্যক্ষ মোঃ এনামুল হক সঙ্গীত পরিবেশন করেন। সবশেষে রাজশাহীর ঐতিহ্য গম্ভিরা পরিবেশন করা হয়। সবাই মনোযোগ সহকারে সঙ্গীত বিকাল উপভোগ করেন। মোঃ আলমগীর হোসেন ও ড.মোঃ আজিজুর রহমান অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

বিকাল ৪টায় সোসাইটির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয় এ সভায় অতিথিবৃন্দের মধ্যে উপস্তিতি ছিলেন অধ্যাপক ড. রাশেদ হাসনাত, অধ্যাপক ড. সুবাস চন্দ্র দাস, সহ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল ফিরোজ। সভায় বিএলএস এর সকল সদস্যদের উপস্থিতিতে ২০১৮-২০১৯ খ্রি: নির্বাচনের মাধ্যমে কার্য্যকরী কমিটি গঠন করা হয়। নির্বাচন পরিচালনা করেন ড. রাশেদ হাসনাত প্রফেসর সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি নব-নির্বাচিত কমিটির সবাইকে অভিনন্দন জানান এবং তিনি নিজে সোসাইটির আজীবন সদস্য হওয়ার ঘোষণা দেন। পরে ফটোসেশনের মাধ্যমে সাধারণ সভা শেষ করা হয়।-সংবাদ বিজ্ঞপ্তি