Thursday, 14 December 2017

 

বেগুনের ক্ষুদ্র পাতা/গুচ্ছ পাতা/তুলসি লাগা রোগ সম্বন্ধে জানুন

ড. কে, এম, খালেকুজ্জামান: বেগুনের বেগুনের ক্ষুদ্র পাতা/গুচ্ছ পাতা/তুলসি লাগা (Little leaf) মাইকোপ্লাজমা (Mycoplasma) দ্বারা এ রোগ হয়ে থাকে। এর ফলে বেগুন চাষীরা আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে। তবে একটু সচেতনতা অবলম্বন করলে সবজি চাষীরা সহজেই এ রোগটি প্রতিরোধ করতে পারেন।

 

যে ভাবে এর রোগটির বিস্তৃতি ঘটে:
সংস্পর্শ ও সিসটিয়াস ফাইসিটিস (Cestius phycitis) নামক পাতা ফড়িং-এর মাধ্যমে এ রোগ বিস্তার লাভ করে। অধিক তাপমাত্রা ও একই জমিতে বার বার বেগুনের চাষ এ রোগ বৃদ্ধির জন্য সহায়ক। ধুতরা ও তামাক এ রোগের বিকল্প পোষকের মধ্যে অন্যতম। গাছের মাঝামাঝি বয়সে এ রোগ হয়ে থাকে।

রোগের লক্ষন:

  • আক্রান্ত গাছের আগায় বা ডগায় অসংখ্য ছোট ছোট পাতা হয়
  • আক্রান্ত গাছের পাতার আকৃতি খুব ছোট হয়
  • আক্রান্ত পাতার ধার হলুদ বা সাদা রং ধারন করে
  • পাতার বোটা ও কান্ডের পর্বগুলি অত্যন্ত ছোট হয়ে যায়। অনেক সময় বোটা সহজে চেনা যায় না
  • পাতাগুলি গুচ্ছাকৃতির মনে হয় ও গাছ খর্বাকৃতির হয়
  • ফুলের বিভিন্ন অংশ রূপান্তরিত হয়ে পাতার আকৃতি ধারন করে
  • আক্রান্ত গাছ সাধারনত: বন্ধ্যা হয়, ফুল-ফল ধারন করে না
  • যদিও ২/১ টি ফল ধারণ করে তবে সে গুলো ছোট ও খুবই শক্ত হয়

প্রতিকার:

  • সুস্থ ও নীরোগ বেগুন হতে বীজ সংগ্রহ করতে হবে
  • চারা লাগানোর সময় চারা ১০০০ পিপিএম টেট্রাসাইক্লিন দ্রবনে ডুবিয়ে লাগাতে হবে এবং চারা রোপনের পর ১ সপ্তাহ পর পর ৪-৫ সপ্তাহ পর্যন্ত ৩ বার স্প্রে করতে হবে
  • আক্রান্ত গাছ দেখা মাত্র তুলে ধ্বংস করতে হবে
  • তামাক ও ধুতুরা জাতীয় আগাছা ধ্বংস করতে হবে
  • বাহক পোকা পাতা ফড়িং দমনের জন্য ইমিডাক্লোপ্রিড (অ্যাডমায়ার/ইমিটাফ) প্রতি লিটার পানিতে ০.৫ মিলি অথবা ডায়াজিনন (৬০ তরল) প্রতি লিটার পানিতে ১.৫ মিলি হারে পানিতে মিশিয়ে জমিতে স্প্রে করতে হবে।

====================================
লেখক:-উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্ভিদ রোগতত্ত্ব)
মসলা গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই
শিবগঞ্জ, বগুড়া।
Mobile No. 01911-762978; 01558-313632; 01673-632486.
E-mail: ;