Wednesday, 23 May 2018

 

পোকা দমনে সিরাজগঞ্জ সদরে পার্চিং উৎসব

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে সারাদেশে পার্চিং উৎসবের অংশ হিসেবে সিরাজগঞ্জ সদরেও গত ৮ মার্চ বৃহস্পতিবার সকল ব্লকে পোকা দমনে পার্চিং উৎসব পোকা দমনে উৎসব পালিত হয়। এদিন সকালে সদর উপজেলার খাগা ব্লকে বোরো ধানের জমিতে গাছের ডাল ও বাঁশের কঞ্চি পুঁতে আনুষ্ঠানিকভাবে পার্চিং উৎসব উদ্বোধন করেন সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রোস্তম আলী। এতে কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা ও স্থানীয় কৃষকরা অংশ নেন।

ধান খেতে পার্চিং করা হলে প্রাকৃতিকভাবে পোকা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। পার্চিং হলো ফসলি জমিতে লম্বা গাছের ডাল, বাঁশের খুঁটি বা কুঞ্চি পুতে রাখা। জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি ওই খুঁটিতে বসে জমির উপরি ভাগের দৃশ্যমান পোকা খেয়ে ফসল সুরক্ষা করে। পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহারের ফলে জমিতে ক্ষতিকর মাজরা পোকার আক্রমন হয়না। ফসলের উৎপাদন খরচ কমে যায়। বিষ প্রয়োগ না করার কারণে পরিবেশ দুষণ হয় না। আর্থিকভাবেও কৃষক লাভবান হয়। জানালেন, রাজগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রোস্তম আলী।

তিনি আরও জানান, চলতি বোরো মৌসুমে ধানের ভালো ফলন নিশ্চিত করা, রোগ ও পোকামাকড় কমাতে রামু উপজেলার প্রতিটি ব্লকে কৃষকদের নিয়ে উৎসব আমেজে পার্চিং উৎসব পালন করা হচ্ছে। ধান খেতে ক্ষতিকর মাজরা পোকা দমনে পার্চিং পদ্ধতি বিষয়ে কৃষকদের সচেতন করার লক্ষ্যে এ উৎসব আয়োজন করে উপজেলা কৃষি অফিস।

রাজগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রোস্তম আলী এসময় কৃষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিষমুক্ত উপায়ে ধান খেতে ক্ষতিকর মাজরা পোকা দমনে পার্চিং পদ্ধতি কৃষকদের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়। ইতিমধ্যে কৃষকরা এর সুফলও পেয়েছে। একারণে কৃষকদের আরও সচেতন করার লক্ষ্যে কৃষি বিভাগের উদ্যোগে পার্চিং উৎসব পালন করা হচ্ছে। এ পদ্ধতি সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ আমির হোসেন, ইউনিয়নে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তামোঃ শফিকুল ইসলাম,মোঃ তারিকুল ইসলাম।