Monday, 23 July 2018

 

আম গাছের দৈহিক বিকৃতি রোগের খুটিনাটি

ড. কে, এম, খালেকুজ্জামান: আমের বিকৃতি বা ম্যালফরমেশন (Malformation) রোগ সম্পর্কে বাগানীদের ধারনা থাকা প্রয়োজন। লাভজনক এ কৃষি পণ্যে এসব বিষয়ের খুটিনাটি জানা থাকলে আমচাষীরা উপকৃত হবেন। এগ্রিলাইফ২৪ ডটকমের পাঠকদের জন্য আজ থাকছে  আমের বিকৃতি বা ম্যালফরমেশন (Malformation) রোগের বিস্তারিত।

আক্রমণের স্থান অনুযায়ী বিকৃতি দুই প্রকার। যথাঃ দৈহিক বিকৃতি (Vegetative malformation) ও মুকুলের বিকৃতি (Floral malformation)

রোগের কারণ: এই রোগ সৃষ্টিকারী প্রকৃত জীবানু এখনও সঠিকভাবে নির্ধারিত হয় নাই। তবে বিজ্ঞানীদের ধারনা এটি শারীরবৃত্তীয়, ভাইরাস, মাইট অথবা ছত্রাক (Fusarium moniliformae) জনিত কারণে হয়।

রোগের বিস্তার:এই রোগ বীজবাহিত নয়, তবে  রোগাক্রান্ত গাছ থেকে চারা কলম, পোকা ও মাকড়ের মাধ্যমে রোগ ছড়ায়।    

রোগের লক্ষন:

দৈহিক বিকৃতির ক্ষেত্রে

  • কান্ড বা দৈহিক বিকৃতি প্রধানতঃ চারা বা ছোট গাছে দেখা যায়
  • আক্রান্ত কান্ডের মাথায় বা গিটে অসংখ্য ছোট ছোট কুড়ি বের হয়
  • কুঁড়িগুলি বেশ শক্ত ও ছোট ছোট পাতাযুক্ত হয়ে থাকে
  • কুঁড়িগুলি বড় হয়না বরং গিটের চর্তুদিকে আরো কুঁড়ি বের হয়ে জটলার সৃষ্টি করে
  • এক সময় নতুন কুঁড়িগুলি মারা যায়
  • চারা গাছ আক্রান্ত হলে এর স্বাভাবিক বৃদ্ধি বন্ধ হয়ে যায়।

মুকুলের বিকৃতির ক্ষেত্রে

  • মুকুলের বিকৃতি স্বভাবতই ফলবান গাছে পরিলক্ষিত হয়
  • মুকুল আক্রান্ত হলে উহা অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পেয়ে জটলার মত ধারণ করে
  • বিকৃত মুকুলে উভলিঙ্গ ফুল তেমন না থাকায় কোন ফল ধারন করে না
  • বিকৃত মুকুল ২/৩ মাস পর্যন্ত গাছে আঁটকে থাকতে দেখা যায়।

রোগের প্রতিকার:     

  • রোগমুক্ত গাছের বীজ থেকে চারা উৎপাদন করতে হবে এবং কলম তৈরী করার সময় রোগমুক্ত গাছ থেকে ডগা বা সায়ন (Scion) সংগ্রহ করতে হবে।
  • আক্রান্ত মুকুল কেটে ধ্বংস করতে হবে
  • দৈহিক বিকৃত কুড়িগুলি ভেঙ্গে ফেলতে হবে অথবা কেটে ফেলতে হবে
  • গাছ খুব বেশী আক্রান্ত হলে তা ধ্বংস করতে হবে
  • মুকুল বের হওয়ার ৩ মাস পূর্বে ন্যাপথালিন এসেটিক এসিড (NAA) ১০ লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে স্প্রে করলে এ রোগের প্রকোপ কমে যায়
  • নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি গাছে ইউরিয়া ১.৫% হারে স্প্রে করলে ফুলের কুড়ি বের হতে দেরী হয়, এতে মুকুলের বিকৃতি কমে, উভলিঙ্গ ফুলের উৎপাদন বাড়ে, রেনুর জীবন ক্ষমতা এবং ফল ধারণ ক্ষমতা বাড়ে
  • গাছে মুুকুল আসার আগে প্লানোফিক্স (০.২ গ্রাম/লিঃ) স্প্রে করলে মুুকুলের বিকৃতির হার কমে।

====================================
লেখক:-উর্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (উদ্ভিদ রোগতত্ত্ব)
মসলা গবেষণা কেন্দ্র, বিএআরআই
শিবগঞ্জ, বগুড়া।
Mobile No. 01911-762978; 01558-313632; 01673-632486.
E-mail: ;