Friday, 15 December 2017

 

টাঙ্গাইলে বন্যায় ৮টি উপজেলার ৬৩ ইউনিয়নের ৬২ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত

কে এস রহমান শফি, টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইল জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও মানুষের দুর্ভোগ কমেনি। টাঙ্গাইল শহরের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ভিতর পানি বাড়ছে। তবে যমুনা নদীসহ শাখা নদীর পানি হ্রাস পাচ্ছে। বন্যার পানিতে ডুবে একজন মারা গেছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বন্যায় জেলার ৮টি উপজেলার ৬৩টি ইউনিয়ন ও ৪টি পৌরসভার ৬২ হাজার ৫৮২টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত উপজেলাগুলো হচ্ছে- ভূঞাপুর, গোপালপুর, নাগরপুর, দেলদুয়ার, কালিহাতী, সদর, বাসাইল ও ধনবাড়ি।

বন্যার পানিতে ৭২ কিলোমিটার সড়ক ও ৬টি সেতু/কালভার্ট আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জেলায় ১৮ হাজার ৭৪৫ হেক্টর ফসল পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। এর মধ্যে ১২ হাজার ৭০ হেক্টর বোনা আমন, ৭৫৬ হেক্টর রোপা আমন বীজতলা, ২ হাজার ৬৫৪ হেক্টর রোপা আমন ধান, ৩১২ হেক্টর পাট, এক হাজার ৩৮৩ হেক্টর আউশ, এক হাজার ৩৪ হেক্টর সবজি, ২০১ হেক্টর কলা ও ৩৩৫ হেক্টর লেবু।

এছাড়া, ৫০ হাজার গবাদি পশু ও ১০ লাখ হাঁস-মুরগী আক্রান্ত হয়েছে। ৮১০টি পুকুরের ৩১৬ দশমিক ৭৯ মে. টন মাছ ভেসে গেছে। অবকাঠামোগত ক্ষতি হয়েছে ২ কোটি ১৩ লাখ টাকা।পানিতে ডুবে নাগরপুর উপজেলার পাকুটিয়া আড়াইপাড়া গ্রামের অরিক হোসেনের কন্যা তানিয়া আক্তার (৪) মারা গেছে।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৮টি উপজেলায় ২৩০ মেট্রিক টন চাউল ও নগদ ১৭ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া ১৯৫ মেট্রিক টন চাউল ও ১৫ লাখ টাকা মজুদ রয়েছে।