Thursday, 23 November 2017

 

হরিণাকুন্ডু উপজেলায় মৌচাষিরা মধু সংগ্রহে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:সরিষার জমিতে মৌচাষে একদিকে যেমন সরিষার উৎপাদন বাড়ে অন্যদিকে মধু সংগ্রহের মাধ্যমে পাওয়া যায় বাড়তি অর্থ। ফলে উভয়দিক দিয়েই লাভবান হন কৃষক ও উদ্যোক্তারা। আর এসময়টিতে কৃষি, প্রাণিসম্পদ ও সমবায় কর্মকর্তারা কৃষকদের মাঝে মধূ চাষে উৎসাহ সহ নানা কারিগরী পরামর্শ দিয়ে থকেন।

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে মৌচাষিরা মধু সংগ্রহে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। মাঠে মাঠে এখন চলছে মধু সংগ্রহের কাজ। মাঠের পর মাঠ হলুদ রংয়ে ভরে গেছে শীতকালীন সোনালী শস্য সরিষার ক্ষেত। এখন সরিষার ক্ষেত মধুতে ভরপুর। ফুলে ফুলে মধু আহরণে ব্যস্ত মৌমাছিরা।

কৃষকদের মাঝে এ চাষ আরো উৎসাহিত করতে ১৮ ডিসেম্বর রবিবার উপজেলার গোবরাপাড়া গ্রামে সরিষার জমিতে মৌচাষ পরিদর্শন করলেন মুহম্মদ আরশেদ আলী চৌধুরী, উপজেলা কৃষি অফিসার; প্রদীপ কুমার হালদার, উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার; মৃণাল কান্তি মল্লিক, উপজেলা সমবায় অফিসার, হরিণাকুন্ডু,  ঝিনাইদহ; মনিশংকর বিশ্বাস, এসএপিপিও উপজেলা কৃষি অফিস, হরিণাকুন্ডু,  ঝিনাইদহ ও দৌলৎপুর ইউনিয়নে কর্মরত  তিনজন এসএএও।

উল্লেখ্য, প্রতিটি বাক্সতে মৌমাছিদের মৌরানী থাকে। রানীর আওতায় থাকে অসংখ্য মৌমাছি যারা তিন কিলোমিটারের মধ্যে সরিষা ক্ষেতের ফুলে ফুলে ঘুরে মধু সংগ্রহ করে নিজ ঘর বাক্সের মধ্যে রানীর কাছে ফিরে আসে। মৌ খামারীরা সেখান থেকে কৃত্রিম প্রক্রিয়ায় মধু সংগ্রহ করে থাকেন।