Saturday, 24 February 2018

 

সারাফ, সায়রা, পাম্মি, শাকির, মাশিয়াত, ইরতেজার "প্রতিদিন একটি ডিম চাই"

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম: সারাফ, সায়রা, পাম্মি, শাকির, মাশিয়াত, ইরতেজার নাস্তার টেবিলে "প্রতিদিন একটি ডিম" চাই। তাইতো তারা দল বেঁধে এসেছিল ডিমের পিরামিড দেখতে রাজধানীর ফার্মগেটস্থ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন চত্বরে প্রাণিসম্পদ মেলার সমাপনী দিনে। তাদের সকলের কাছে মেলাটি ছিল যেমন আনন্দের তেমনি ছিল উপভোগ্য।

মেলার মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষনীয় ছিল ডিমের পিরামিডটি। ডিম খেতে কেমন লাগে জানতে চাইলে তারা সবাই একবাক্যে "প্রতিদিন একটি ডিম চাই" বলে উঠলো। তাছাড়া ডিমের তৈরী পুডিংসহ চিকেন নাগেট, চিকেন বল, সসেজ, সামুচা সহ চিকেনের প্রতিটি পণ্যই তাদের সকলের কাছে অত্যন্ত প্রিয়। মেলা ঘুরে ঘুরে তাদের অভিজ্ঞতাটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার বিনিময় করবে বলে জানালো।

মেলার সমাপনী দিনে প্রাণিম্পদের উন্নয়নের প্রযুক্তিগুলি দেখতে ভিড়ে মুখরিত ছিল প্রানিসম্পদ মেলা প্রাঙ্গন। প্রাণিসম্পদকে কেন্দ্র করে দেশের আনাচেকানাচে গড়ে উঠেছে পোল্ট্রি, ডেইরী, মৎস্য খামার। এসব খামার থেকে উৎপাদিত প্রাণিজ প্রোটিন দিয়ে পুষ্টির সংস্থান হচ্ছে এ দেশের জনগণের। এসব কেন্দ্র করে কর্মসংস্থানের দ্বারগুলি দিন দিন উম্মোচিত হচ্ছে।

দেশের নামী দামী এনিম্যাল হেলথ্ কোম্পানীগুলোর পাশাপাশি পোল্ট্রি ও মিট প্রসেসিং কোম্পানীগুলোর ষ্টল ও প্যাভিলিয়নগুলিতে ছিল উপচে পড়া ভিড়। ফিড প্রস্তুতকারী কোম্পানীগগুলো প্রদর্শন করেছে নানা ধরনের ফিড। অনেকেই উৎসাহী এ সেক্টরে বিনিয়োগ করতে। ভোক্তারাও উপভোগ করেছেন প্রাণিজ প্রোটিনের স্বাদ। সব মিলিয়েই এবারের মেলাটি বেশ নজর কেড়েছে সর্বমহলে।

তিন দিনের এ মেলাটি শেষ দিনে এক মিলনমেলায় পরিনত হয়েছিল। মেলায় অংশগ্রহনকারী সকলের কাছেই মেলাটি সফল হয়েছে বলে জানালেন। প্রানিসম্পদ অধিদপ্তরের সকলের অকান্ত পরিশ্রমে মেলাটি ছিল প্রানবন্ত। আগামীতে সকলের অংশগ্রহণে নিত্য নতুন প্রযুক্তি দিয়ে মেলায় অংশগ্রহনের প্রত্যয় জানালেন আয়োজকরা।