Wednesday, 22 November 2017

 

পাটজাত পণ্যে শুল্ক প্রত্যাহারে ভারতের প্রতি বাণিজ্যমন্ত্রীর আহ্বান

কৃষি বানিজ্য ডেস্ক:বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ভারত বাংলাদেশের বিশ্বস্ত বন্ধুরাষ্ট্র। ভারত বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য ব্যবধান কমিয়ে আনতে বাংলাদেশের এলকোহল ও তামাক ছাড়া সকল পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে ডিউটি ও কোটা ফ্রি সুবিধা প্রদান করেছে। তবে এন্টি ডাম্পিং, কাউন্টার ভেইলিংসহ বিভিন্ন শুল্ক আরোপের ফলে আশানুরূপ রপ্তানি সম্ভব হচ্ছে না। মন্ত্রী পাটজাত পণ্য রপ্তানিতে এন্টি ডাম্পিং শুল্ক প্রত্যাহারে ভারতকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান।

১৫ নভেম্বর মঙ্গলবার ঢাকায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে ঢাকা চেম্বার অভ্ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত ‘এন্টি ডাম্পিং ডিউটি অন ইম্পোর্টস অভ্ জুট এন্ড প্রোডাক্টস ফ্রম বাংলাদেশ বাই ইন্ডিয়া : চ্যালেঞ্জেস এন্ড ওয়ে আউট’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাণিজ্যমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, পাটজাত পণ্য বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় রপ্তানি পণ্য। রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য সরকার অনেক রপ্তানি পণ্যের ওপর নগদ আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে, ভারতও প্রায় সকল রপ্তানি পণ্যের ওপর ভর্তুকি দিয়ে আসছে। এ সময় ভারতে পাটজাত পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে এন্টি-ডাম্পিং শুল্ক আরোপ প্রত্যাশিত নয়। বিষয়টিকে সরকার গুরুত্ব সহকারে নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। আমরা আশা করছি ভারত এমন কোনো পদক্ষেপ নেবে না, যাতে বাংলাদেশের পাটজাত পণ্য রপ্তানি বাণিজ্যের ক্ষতি হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, ডিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট হোসেইন খালেদ, আইসিসি বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মাহবুবুর রহমান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মুনির চৌধুরী, জেপিআইএম ভারতের প্রেসিডেন্ট সদ্বীপ সারাফ এবং বিজেএসএ’র চেয়ারম্যান আহমেদ হোসেইন সহ পাট রপ্তানিকারক সংগঠনের প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন।
তথ্য ও ছবি-পিআইডি’র সৌজন্যে