Tuesday, 19 September 2017

 

বাংলাদেশে শিল্পায়নের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে-শিল্পমন্ত্রী

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:বাংলাদেশে শিল্পায়নের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে। দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০০টি ইকোনমিক জোন গড়ে তোলা হচ্ছে। ভারতের উদ্যোক্তারা চাইলে এর একটি তাদের জন্যও বরাদ্দ দেয়া হবে। দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৈষম্য নিরসনে ভারতীয় ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

 

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু আজ রাজধানীর একটি হোটেলে ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত ‘কৃষি, হর্টিকালচার ও প্রক্রিয়াজাত খাদ্যশিল্প খাতের ওপর ব্যবসায়িক সম্মেলনে’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশে বিরাজমান স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ভারতীয় শিল্প উদ্যোক্তারা নিশ্চিন্তে বিনিয়োগ করতে পারেন। ফলে বাংলাদেশে ভারতের বিনিয়োগ বাড়বে। পাশাপাশি বাংলাদেশে বিনিয়োগকৃত শিল্প কারখানায় উৎপাদিত পণ্য ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে পুনঃরপ্তানির সুযোগ তৈরি হবে। এতে করে দু’দেশের উদ্যোক্তা ও জনগণ লাভবান হবে।

তিনি বিশেষভাবে উল্লেখ করে বলেন এ অঞ্চলে বাংলাদেশি ইট, সিমেন্ট, প্রক্রিয়াজাত খাবার এবং খাদ্য পণ্য, কৃষিভিত্তিক পণ্য, মাছ এবং মাছজাত পণ্য, মেলামাইন, সিরামিক, প্রসাধনী ও কসমেটিক্স এবং সিআই শীট, হালকা প্রকৌশল পণ্য ইত্যাদির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। বিশেষ করে, ভৌগলিক নৈকট্য এবং স্বল্প পরিবহণ ব্যয়ের ফলে এ সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে ওঠেছে। কৃষিখাতে বাংলাদেশের সম্ভাবনা ব্যাপক। বছরের পর বছর ধরে কৃষি উন্নয়নে আন্তরিক প্রচেষ্টা, উন্নত প্রযুক্তি প্রয়োগ, আধুনিক প্রক্রিয়াকরণ সুবিধা জোরদার এবং খাদ্য বিপণন কৌশল গ্রহণের ফলে এ সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশী কৃষিজাত দ্রব্য যেমন সবজি, মশলা এবং ফল-মূল ইত্যাদি রপ্তানির অপার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে এবং দেশের চাহিদা মিটিয়ে এগুলো ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা, ভারত-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি সভাপতি,তাসকিন আহমেদ, এফবিসিসিআই’র সভাপতি, মোঃ শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন), ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্সের (আইসিসি) , মহাপরিচালক রাজিব সিং, এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি, আবদুল মাতলুব আহমাদ প্রমুখ।

আজ থেকে শুরু হওয়া ভারত-বাংলাদেশের দু’দিন ব্যাপী ক্রেতা-বিক্রেতা মিলন মেলা চলবে আগামীকাল পর্যন্ত। মেলার সময় ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।