Tuesday, 12 December 2017

 

কর্মসংস্থান সৃষ্টির মতো এতো সুযোগ কেবলমাত্র পোল্ট্রি শিল্পেই-সুলেখা নবী

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কর্মসংস্থান তৈরীর মতো এতো সুন্দর সুযোগ কেবলমাত্র পোল্ট্রি শিল্পেই রয়েছে আর আগামীতে পোল্ট্রি সেক্টরের সকলের সাথে আরো বেশি বেশি সম্পৃক্ত হতে চায় Provita; এ লক্ষে ব্যতিক্রমধর্মী ও যুগোপোযোগী নানা পদক্ষেপ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে দেশের পোলট্রি সেক্টরে অন্যতম প্রধান শিল্প প্রতিষ্ঠান প্রভিটা গ্রুপ। সম্প্রতি এগ্রিলাইফ২৪ ডটকমের সাথে এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানালেন Provita group-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও মিসেস সুলেখা নবী

Provita group-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর বলেন পোল্ট্রি সেক্টরটি দেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ শিল্পকে ঘিরে আবর্তিত হচ্ছে নানা কর্মকান্ড। গ্রাম থেকে নগর-রাজধানী সর্বত্রই এর বিস্তৃতি। সমাজের প্রত্যেকটি স্তরেই রয়েছে পোলট্রির সরব উপস্থিতি। যেখানেই এ শিল্পের সম্প্রসারণ ঘটেছে সেখানেই একে কেন্দ্র করে সৃষ্টি হয়েছে কর্মচাঞ্চল্য যা এলাকার সমাজকে বদলে দিয়েছে। আর এসব কাজকর্মে সম্পৃক্ত হওয়ার সুবাদে বেকার যুবকরা আর বিপথগামী হচ্ছে না। পোলট্রিজাত পণ্য প্রোটিনের সহজলভ্য ও স্বাস্থ্যকর উৎস হিসেবে দিন দিন সকলের নিকট গ্রহনযোগ্যতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

২০০৪ সাল থেকে যাত্রা শুরু করে Provita Group আজকের এ অবস্থানে এসে দাঁড়িয়েছে জানিয়ে মিসেস নবী বলেন মূলত: মান সম্পন্ন খাদ্য ও একদিন বয়সী মুরগির বাচ্চা সরবরাহের কারনেই এটি সম্ভব হয়েছে। তিনি বলেন ২০০৪ সাল থেকে প্রভিটা গ্রুপের যাত্রা শুরু হলেও এ সেক্টরের সাথে তাদের সংশ্লিষ্টতা প্রায় ২১ বছরের"শুরুতেই আমরা বুঝতে পেরেছিলাম এখানে পোলট্রি শিল্পের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে।" সেভাবেই Provita Group পরিকল্পনা মাফিক এগিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান মিসেস নবী। প্রভিটা গ্রুপের প্রতিষ্ঠানগুলিতে কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে কয়েক হাজার লোকের যা প্রতিষ্ঠানটির একটি অন্যতম লক্ষ বলে জানান তিনি।

মিসেস নবী বলেন পোলট্রি শিল্পের সম্প্রসারণের কারণে সমগ্র দেশের আনাচে কানাচে গড়ে ওঠা পোল্ট্রি খামারগুলিতে একদিকে যেমন কর্মসংস্থান হচ্ছে অন্যদিকে পুষ্টি নিরাপত্তায় রাখছে অনবদ্য অবদান। সুলেখা নবী আরো বলেন, দেশের তৈরী পোশাক শিল্পে নারীদের সক্রিয় অবস্থান থাকলেও সেটি শহরাঞ্চলে সম্ভব হচ্ছে। কিন্তু অনেক নারী গ্রামে থাকার কারণে তারা শহরে এসে কাজ করতে না পারার কারণে তাদের আর্থিক সক্ষমতা বাড়ছে না। তবে গ্রামের নারীদের জন্য সবচেয়ে সহজ ও লাভজনক বিনিয়োগ হতে পারে পোলট্রি শিল্প। তাই নারীর ক্ষমতায়ন চাইলে তারা যাতে এ কাজে এগিয়ে আসে সেদিকটার কথা সরকারী-বেসরকারী সব পর্যায়ে বিবেচনায় রাখতে হবে।

পোলট্রি শিল্পের সম্প্রসারণে কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এ শিল্পে আয়কর, আমদানি শুল্ক ছাড়াও অনেক বিষয়ে নানা রকম জটিলতায় নিত্য ভুগতে হয় পোলট্রি শিল্পোদ্যাক্তাদের যা পোলট্রি শিল্প সম্প্রসারণে প্রতিন্ধকতার সৃষ্টি করে। তবে যে কোন কিছু করতে গেলে বাঁধা-বিঘ্ন সামনে আসবেই তাই বলে তো বসে থাকা যাবে না। চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করতে সময়োপোযোগী পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতি সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করলে এ সেক্টরটি অচিরেই দেশের অন্যতম প্রধান খাতে পরিণত হবে বলে মনে করেন মিসেস নবী।

Provita group-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও হিসেবে মিসেস সুলেখা নবী যেন আগামীতে তাদের প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট সকলের জন্য আরো বেশি বেশি কাজ করতে পারেন সে জন্য সকলের দোয়া ও আন্তরিক শুভেচ্ছা কামনা করেছেন।