Saturday, 18 November 2017

 

শুধু নিজের স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রাখলে মানবজাতির স্বাস্থ্য সুরক্ষা হবে না-শেকৃবি উপাচার্য

শেকৃবি প্রতিনিধি: শেরেবোংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেছেন বিশ্বব্যাপী ধ্যান ধারনার পরিবর্তন হচ্ছে, শুধু নিজের স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রাখলে মানবজাতির স্বাস্থ্য সুরক্ষা হবে না। সামগ্রিক বিশ্বের সুস্বাস্থ্য রক্ষায় বিশ্ব এক স্বাস্থ্য ধ্যান ধারনাকে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে।

বিশ্বব্যাপী এক স্বাস্থ্য দিবস পালন ও উদযাপনের ধারাবাহিকতায়, বৃহস্পতিবার ১০ নভেম্বর বিকালে শেরেবোংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের সেমিনার কক্ষে সেমিনার ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

শেকৃবি উপাচার্যদ আরো বলেন, সারা বিশ্বে সমন্বিত স্বাস্থ্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। তবে মানুষ ভালোভাবে বেঁচে থাকতে পারবে। এর জন্য সকলের সচেনতা বৃদ্ধি করার দরকার। সেই সঙ্গে সকল বিভাগের প্রতিনিধি নিয়ে একটি কমিটি করতে হবে এবং তারা সুনিদিষ্টভাবে সবাইকে নিয়ে পরিকল্পনা করবে। সকলের সমন্বিত উদ্যোগে একটি সুন্দর বিশ্ব পাওয়া যাবে।  

রিলিফ ইন্টারন্যাশন্যল-ইউকে বাংলাদেশ, ইউএসএইড প্রিপেয়ারডনেস এন্ড রেস্পন্স-ওয়ান হেলথ ইন একশন এবং ওয়ান হেলথ বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় শেকৃবি’র মেডিসিন এন্ড পাবলিক হেলথ বিভাগ আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে শেকৃবি’র মেডিসিন এন্ড পাবলিক হেলথ বিভাগের চেয়ারম্যান ও বিশ্ব এক স্বাস্থ্য দিবস উৎযাপনের সমন্বয়ক ড. কে, বি, এম, সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় এবং এনিম্যাল সায়েন্স এন্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোঃ মোফাজ্জল হোসাইন এর সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেকৃবি’র কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ারুল হক বেগ ও শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ এর অধ্যাক্ষ অধ্যাপক ড. এ বি এম মাকসুদুল আলম, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল-ইউকের বাংলাদেশ কান্ট্রি ডিরেক্টর এম. নজরুল ইসলাম।

সেমিনারে বিশ্ব এক স্বাস্থ্য দিবস এর উপর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অর্গনাইজেশন (এফএও) এর ওয়ান হেলথ সমন্বয়কারী প্রফেসর ড. নীতিশ চন্দ্র দেবনাথ এবং ইউএসএইড প্রিপেয়ারডনেস এন্ড রেস্পন্স- ওয়ান হেলথ ইন একশন এর ওয়ান হেলথ টেকনিক্যাল পরামর্শক ড. মোঃ আবুল কালাম।

প্রবন্ধে বক্তারা জানান মানুষের উদীয়মান সংক্রামক রোগসমূহের মধ্যে ৭৫ শতাংশ রোগ প্রাণী থেকে আসছে। সচেতনতার অভাবে এসব রোগ পৃথিবীব্যাপী দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। গবেষণামতে, ৭১ শতাংশ মানুষ জানে না যে, প্রানী থেকে মানুষে রোগ ছড়াতে পারে। ইঁদুর বাহিত রোগ প্লেগ এক সময় মহামারি আকারে দেখা দিত। তবে বর্তমানে ইবোলা, সোয়াইন ফ্লু, মার্স করোনা ভাইরাস, এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা (বার্ড ফ্লু)-এসব জুওনোটিক রোগ বিশ্বব্যাপী মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে।

প্রফেসর নীতিশ দেবনাথ বলেন, মানুষের ধারণা নিজের রোগ নিজের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে। ফলে এসব রোগ নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা কম দেখা যায়। ইবোলা, বার্ড ফ্লু এর মত ভয়ানক রোগ থেকে মুক্তি পেতে হলে গতানুগতিক ধারণার বাইরে এসে মানুষকে ভাবতে হবে। ফলে এ ক্ষেত্রে সচেতনতার বিকল্প নেই। নিজের স্বাস্থ্যের পাশাপাশি প্রাণী ও পরিবেশের স্বাস্থ্য রক্ষা করতে হবে।

রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল-ইউকের বাংলাদেশ কান্ট্রি ডিরেক্টর এম. নজরুল ইসলাম তাঁর বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশে ওয়ান হেলথ বাস্তবায়ন ও জুনোটিক রোগ সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল কাজ করে যাচ্ছে। ভবিষ্যতে ওয়ান হেলথ বাস্তবায়নে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রতিষ্ঠানের সাথে রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল কাজ করতে আগ্রহী।

সেমিনারে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থিত বাংলাদেশের একমাত্র জুনোটিক রোগ গবেষণা ও তথ্য কেন্দ্রের কেন্দ্র ইন চার্জ এবং বিশ্ব এক স্বাস্থ্য দিবস উৎযাপনের সমন্বয়ক ড. কে, বি, এম, সাইফুল ইসলাম বলেন, সমগ্র বিশ্বের মানবজাতির সামগ্রিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় মানব স্বাস্থ্যের পাশাপাশি প্রাণি ও পরিবেশের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও ভারসাম্য অতীব জরুরি। বাংলাদেশের মত অতি সংবেদনশীল দেশে জুনোটিক রোগের প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রন ও সচেতনতা বৃদ্ধিকল্পে স্থায়ীভাবে এক স্বাস্থ্য কার্যক্রম চালু থাকা দরকার। আর এর জন্য প্রয়োজন সরকারি, বেসরকারি ও স্বেচ্ছাসেবক প্রতিষ্ঠানের সমন্বিত উদ্যোগ।

বিভিন্ন শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ৩০০ শতাধিক ব্যাক্তিবর্গ সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে এক বর্নাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‍্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন হতে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিন করে।