Saturday, 16 December 2017

 

রাবিতে বায়োইনফরমেটিক্স এন্ড বায়োস্ট্যাটিস্টিক্স বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পরিসংখ্যান বিভাগের উদ্যোগে ‘বায়োইনফরমেটিক্স এন্ড বায়োস্ট্যাটিস্টিক্স ফর এগ্রিকালচার, হেলথ্ এন্ড এনভায়ারনমেন্ট’ (Bioinformatics and Biostatistics for Agriculture, Health and Environment)  শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন আজ শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে।

এদিন বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে চার দিনব্যাপী এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের সভাপতি রাবি উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য প্রফেসর মো. ইউসুফ আলী মোল্লা, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের মাধ্যমে বাস্তবায়নাধীন উচ্চ শিক্ষার মানোন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) ড. গৌরাঙ্গ চন্দ্র মোহান্ত, রাবি উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান ও বাংলাদেশ সেন্টার ফর এ্যাডভান্সড স্টাডিজ-এর নির্বাহী পরিচালক ড. এ আতিক রহমান। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি অসুস্থতার কারণে উপস্থিত হতে পারেননি বলে  জানা যায়।

এই অনুষ্ঠানে সম্মেলনের আহ্বায়ক পরিসংখ্যান বিভাগের প্রফেসর মো. ছায়েদুর রহমান স্বাগত বক্তৃতা করেন। বিভাগের সভাপতি প্রফেসর মো. আইয়ুব আলী অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষক মো. মনিমুল হক ও ফারহানা হাসান সম্মেলন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন।

অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ বলেন, আজকের বিশ্বে স্থায়িত্বশীল উন্নয়নের জন্য তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও তার গবেষণাভিত্তিক বিশ্লেষণ একান্ত প্রয়োজন। গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফল বিভিন্ন ক্ষেত্রে যেমন স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা, কৃষি, পরিবেশ সংরক্ষণ ইত্যাদি ক্ষেত্রে উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কাজেই বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও শতাব্দীর উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ ও প্রাপ্ত ফলাফল ব্যবহারে নিরন্তর গবেষণার প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে নিশ্চিতভাবেই এই সম্মেলন আগামী দিনের জন্য দিক-নির্দেশনা দিবে বলে তাঁরা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পরিসংখ্যান বিভাগ ও বাংলাদেশ বায়োইনফরমেটিক্স এন্ড কম্পিউটেশনাল বায়োলজি এসোসিয়েশনের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (ধ২র), বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের মাধ্যমে বাস্তবায়নাধীন উচ্চ শিক্ষার মানোন্নয়ন প্রকল্প ও ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এর সহযোগিতায় এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

চার দিনব্যাপী এই সম্মেলনে ২টি কি-নোট পেপার, ৯টি প্লেনারি স্পিচ, ১৫টি স্পেশাল ইনভাইটেট পেপার, ৫৮টি ইনভাইটেট পেপার ও ১০৭টি কনট্রিবিউটেট পেপার ও ৮১টি পোস্টার পেপার উপস্থাপিত হবে বলে নির্ধারিত আছে। এছাড়া ১৬টি বিশেষায়িত প্রদর্শনী স্টলও থাকবে।

এই সম্মেলনে বাংলাদেশ ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জাপান, হংকং, চীন, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, চিলি, ফিজি, কানাডা, ভারতসহ অন্যান্য কয়েকটি দেশের প্রায় ৪০০ জন গবেষক, পরিসংখ্যান ও গণিতবিদ, কম্পিউটার বিজ্ঞানী, কৃষিবিদ, চিকিৎসা বিজ্ঞানী, পরিবেশ ও জীববিজ্ঞানী এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের পেশাজীবীরা অংশ নিচ্ছেন।-সংবাদ বিজ্ঞপ্তি