Monday, 20 November 2017

 

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলায় আড়াই লাখ বৃক্ষরোপণ কর্মসুচি পালিত

কে এস রহমান শফি. টাঙ্গাইল: “সবাই মিলে লাগাই বৃক্ষ,একদিনেই আড়াই লক্ষ” এই স্লোগান নিয়ে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলায় সোমবার (৯ অক্টোবর) আড়াই লাখ বৃক্ষরোপণ কর্মসুচি পালিত হলো। আবহাওয়া ও জলবায়ুর ভারসাম্য রক্ষার্থে পুরো দেলদুয়ার উপজেলাকে সবুজের চাদরে ঢাকার লক্ষ্যে এ উদ্যোগ নিয়েছিল উপজেলা পরিষদ।

সকালে উপজেলার পাথরাইলে আইডিয়াল কিন্ডার গার্টেন স্কুলে একযোগে গাছের চারা লাগানোর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। উদ্যোক্তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন কবিরের সভাপতিতে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল-৬ আসনের সংসদ সদস্য খন্দকার আব্দুল বাতেন।  অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ নেছার উদ্দিন জুয়েল, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম ফেরদৌস আহমেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আকতারুননেছা,উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা কাজী এমদাদুল হক, উপজেলা প্রকৌশলী মীর আলী সাকির, ভাইস চেয়ারম্যান রেবেকা পারভীন, পাথরাইল ইউপি চেয়ারম্যান হানিফুজ্জামান লিটন প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

দেলদুয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, বর্তমানে জলবায়ুর পরিবর্তনের প্রভাবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বেড়ে যাচ্ছে। অনিয়মিত ঋতু পরিবর্তন হচ্ছে, ঋতুর বৈশিষ্ট্যের পরিবর্তন হচ্ছে । এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও জলবায়ু স্বাভাবিক রাখতে বেশি গাছ থাকা প্রয়োজন। অন্যদিকে সম্প্রতি বেশি হারে বজ্রপাত হচ্ছে। বজ্রপাতরোধে তালবীজ বিশেষ ভুমিকা রাখে। ফলে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী তালবীজ রোপণসহ অন্যান্য গাছ মিলিয়ে উপজেলার প্রত্যেককে অন্তত একটি করে গাছ লাগিয়ে উপজেলায় আড়াই লাখ গাছের চারা রোপনের উদ্যোগ নেয়া হয়।

উপজেলা পরিষদ সূত্র জানায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সক্রিয়রা বৃক্ষরোপণ অভিযানকে সফল করতে যথেষ্ট প্রচারণা করেছেন। এছাড়া জনপ্রতিনিধি, স্কুল, কলেজ,হাট-বাজার এসব জায়গায় লিফলেট বিতরণ ও মাইকযোগে প্রচারনা চালানো হয়েছে। এছাড়াও স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন সংগঠনের সাথে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে মতবিনিময় করা হয়েছে।

বিভিন্ন সড়কের পাশে ফলজ উদ্ভিদের সাথে শোভাবর্ধণকারী গাছ নীম,জারুল,সোনালু,কৃষ্ণচুড়া,শিমুল ও মহুয়া গাছের চারা সরকারিভাবে লাগানো হয়েছে। এছাড়া নিজ নিজ বাড়িতে ব্যক্তি উদ্যোগে ইচ্ছেমতো জায়গায় পছন্দমতো চারা রোপণ করেছে সাধারণ মানুষ।

পাথরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হানিফুজ্জামান লিটন বলেন, উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসুচি সফল হয়েছে। প্রত্যেক ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে স্ব-স্ব এলাকায় গাছের চারা লাগান নিশ্চিত করেছেন। সরকারি চারাগুলো ইউপি সদস্যদের মাধ্যমে বিতরণ হয়েছে।

শুধু আজ নয়, আরো দু-চার দিন বৃক্ষ রোপণ অব্যাহত থাকবে। আড়াই লাখ চারা রোপণের লক্ষ্য পূরণ হয়েছে বলে ইউএনও মনে করেন।