Tuesday, 17 July 2018

 

স্পেশাল অলিম্পিকস্-এর ৫০ বছর পূর্তিতে দুই মাস ব্যাপী ক্যাম্পেইন "অপরাজেয় আমরা"-এর উদ্বোধন

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:"স্পেশাল অলিম্পকসে দেশের বুদ্ধি প্রতিবিন্ধী মানুষদের সীমাবদ্ধতা অতিক্রমের উদাহরণ ছাড়িয়ে যাক আমাদের সবার মাঝে; প্রেরণা হয়ে। আমরা সবাই দেশের জন্য, নিজের জীবনের জন্য হতে উঠি অপরাজেয়."। আজ ১২ ডিসেম্বর বেলা ১১:০০ টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে "অপরাজেয় আমরা"-এর আহবায়ক এবং স্পেশাল অলিম্পিকস্ বাংলাদেশ এর পরিচালক মশিউর রহমান এসব কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে স্পেশাল অলিম্পিকস্ এর পঞ্চাশ বছর পূর্তিতে, বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মানুষগুলোর সাফল্যের গল্পের অনুপ্রেরণা সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে, আগামী দুই মাস ব্যাপী ক্যাম্পেইন "অপরাজেয় আমরা" উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়।

মশিউর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, “আগামী দুই মাস ধরে আমরা সারা দেশ জুড়ে নানা ধরণের প্রচারণা, এক্টিভিটি ও ইভেন্টের আয়োজন করব। সোশ্যাল মিডিয়াসহ নানা ধরণের প্রচারণার মধ্য দিয়ে আমরা চেষ্টা করব ঘরে ঘরে অপরাজেয় মানুষগুলোর গল্প পৌঁছে দিতে। স্কুল প্রচারণা, সাইকেল র‌্যালি, মশাল র‌্যালি, ম্যারাথন সহ দেশজুড়ে নানা আয়োজন শেষ হবে কক্সবাজারে ৩ দিনব্যাপি কার্ণিভালের মধ্য দিয়ে। আর পাশাপাশি অপরাজেয় মানুষগুলোর বিকাশ অব্যাহত রাখার জন্য থাকবে তহবিল সংগ্রহের আহ্বান”।

সংবাদ সম্মেলনে জনাব মশিউর রহমান ছাড়াও স্পেশাল অলিম্পিকস্ বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান শামীম মতিন চৌধুরী, প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আশরাফ দাওলা উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া ক্যাম্পেইন এর সাফল্য কামনা করে বক্তব্য দেন এভারেস্ট জয়ী দুই অপরাজেয় মানুষ-নিশাত মজুমদার, এম এ মুহিত। এম এ মুহিত বলেন প্রত্যেক মানুষের জীবনে একটি এভারেষ্ট আছে; আর সেটি হলো স্বপ্ন।। বিশিষ্ট ফুটবল কোচ শফিকুল ইসলাম মানিক বলেন তাদের প্রয়োজেেনবিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ দিয়ে সহায়তা করবেন তিনি।

ক্যাম্পেইন সফল করার জন্য প্রস্তুতি ব্যাখ্যা করেন স্পেশাল অলিম্পিকস্ বাংলাদেশ-এর ক্যাম্পেইন পার্টনার এজেন্সি লেভেল ক্রসিং লিমিটেড এর সিইও সাইদুল হক খন্দকার। এ ছাড়া দেশে এবং বিদেশে বিভিন্ন স্পেশাল অলিম্পিকস্ ইভেন্টসে সাফল্য বয়ে আনা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মানুষগুলোও এখানে উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে বক্তারা বলেন, “আমাদের লক্ষ্য এই ক্যাম্পেইন-এর মাধ্যমে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মানুষগুলো এবং সাথে সাথে তার পরিবারের সংগ্রামগুলো মানুষের কাছে তুলে ধরা। আমরা জানাতে চাই, স্পেশাল অলিম্পিকস্ বাংলাদেশ কী  কী উদ্যোগ নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে, এই সংগ্রামী মানুষগুলোর। আর সেই সাথে আমরা বোঝাতে চাই, আমাদের উদ্যোগগুলোকে আরো বহুদুর এগিয়ে নিয়ে যেতে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহন ও সহযোগিতার প্রয়োজন”।