Wednesday, 23 May 2018

 

তরুণ নেতৃত্বের খোঁজে রিভার ক্যাম্পের উদ্বোধন

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি প্রতিনিধি:'নদীর কল্যানে তরুণ নেতৃত্বের খোঁজে' স্লোগানকে বুকে ধারণ করে ৪দিন ব্যাপী রিভার ক্যাম্প বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে। যা চলবে আগামী রবিবার পর্যন্ত। রিভারাইন পিপল, সেন্টার ফর ন্যাচারাল রিসোর্স স্টাডিজ ও অক্সাফামের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমিতে (নায়েম) অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

অক্সফামের প্রোগাম ডিরেক্টর এম বি আখতারের সভাপতিত্বে ও রিভারাইন পিপলে পরিচালক  নুসরাত খানের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নদী বিশেষজ্ঞ ও অ্যমেরিটাস অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সদস্য শারমিন সোনিয়া মোর্শেদ, অক্সফাম বাংলাদেশের প্রোগাম ম্যানেজার ড. মো. খালিদ হোসাইন।

অনুষ্ঠানে নদী ক্যাম্প নিয়ে স্বাগত বক্তব্য দেন অক্সফাম বাংলাদেশের ই এম খান সিদ্দীকি। অনান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন রিভারাইন পিপলের মহাপরিচালক শেখ রোকন, চেয়্যারপারসন মাসুদ পারভেজ রানা, পরিচালক মোহাম্মদ এজাজ, ইন্টারন্যাশনাল ওয়াটার আসোসিয়েশনের সাউথ এশিয়া প্রোগাম ম্যানেজার বুশরা নিশাত, পানি বিশেষজ্ঞ ড. মো. মিজানুর রহমান, জীববিশেষজ্ঞ তাপস রঞ্জন চক্রবর্তী, আইইউসিএনের প্রোগাম কো-অর্ডিনেটর ড. হাসিব মো. ইরফানউল্লাহ, তরিকুল ইসলাম প্রমুখ।

স্বাগত বক্তব্যে ই এম খান সিদ্দিকী প্রত্যাশা করেন ক্যাম্পে  তরুণরা নদী সম্পর্কে জেনে পরবর্তীতে নদী সমস্যা নিরসন ও সম্ভাবনা নিয়ে কাজ করবে। আগামীতে তাদের হাত ধরেই নদীমাতৃক বাংলাদেশের গৌরব ফিরে পাবে।

খালেদ হোসাইন বলেন, উন্নয়নের স্বার্থে আমরা নদীকে নষ্ট করছি, নদীর অপব্যবহার করছি। যেটা কোনভাবেই আমাদের করা ঠিক হচ্ছে না। তিনি আরো বলেন, আমরা আজ যে সভ্যতা, নগরায়ন, শিল্প বিপ্লবের কথা বলছি তা কিন্তু শুরুই হয়েছিল নদীকে কেন্দ্র করেই তা আমাদের ভুলে গেলে চলবে না। রিভার ক্যাম্প আয়োজন নদী রক্ষা আন্দোলনের অংশ হিসেবে কাজ করবে বলে তিনি মনে করেন।

মাসুদ পারভেজ রানা, দূর দূরান্ত থেকে আসা নদীপ্রেমী তরুণদের প্রথমেই নদীময় শুভেচ্ছা জানান। তিনি মনে করেন পাঠ্য বইয়ে নদী বিষয়ক অধ্যায়,  ছবি যুক্ত করার মাধ্যমে তরুণদের নদীপ্রেমী করতে পারা সম্ভব। এতে শিক্ষার্থীদের নদীর প্রতি ভালোবাসা জন্মাবে। তখন কেউ আর নদী খাদক না হয়ে বরং নদী প্রেমিক হবেন। সরকার ও সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে কথা বলে উদ্যোগটি গ্রহণ করবেন বলেও জানান।

শারমিন সোনিয়া মোর্শেদ বলেন, নদীর প্রতি ভালোবাসা ও নদীকে জানতে পারার মাধ্যমেই বাংলাদেশের নদীগুলোকে বাঁচানো সম্ভব। তিনি আরো বলেন, দখল, দূষণের মাধ্যমে যারা নদীকে মেরে ফেলছেন তারা সবাই ক্ষমতাবান। আইনের প্রয়োগ ও সুশাসনের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। নদী নষ্টকারী যেই হোক না কেন তার বিরুদ্ধে সরকারের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে তবেই নদী রক্ষা করা সম্ভব। এক্ষেত্রে তরুণ প্রজন্ম জনসচেতনা ও জনমত তৈরির মাধ্যমে নদী রক্ষায় ভূমিকা রাখতে পারে বলে তিনি মনে করেন।

শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নদী বিশেষজ্ঞ আইনুন নিশাত বলেন, নদী দূষণকারীদের বিরুদ্ধে দেশে যেসব আইন রয়েছে সেগুলোর যথাযথভাবে প্রয়োগ করা গেলেই নদী রক্ষা করা অনেকখানি সহজ হয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন উন্নত দেশে যারা নদীর তীরে বসবাস করে তারা সবাই বড়লোক কিন্তু বাংলাদেশে এর উল্টো। রিভার ক্যাম্প শেষে অংশগ্রহণকারীরা  এক একজন নদী রক্ষার সৈনিক হিসেবে কাজ করবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।

সারাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৩০ জন নদীপ্রেমী তরুণ এ ক্যাম্পে অংশগ্রহণ করছেন।