Tuesday, 22 May 2018

 

শেকৃবিতে বিশ্ব বাঘ দিবস উদযাপিত

শেকৃবি প্রতিনিধি: আজ (২৯ জুলাই) বিশ্ব বাঘ দিবস। বাঘ রয়েছে বিশ্বের এমন ১৩টি দেশ তথা বাংলাদেশ, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, চীন, ভুটান, নেপাল, মায়ানমার, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, কম্বোডিয়া, লাওস, ভিয়েতনাম ও রাশিয়ায় প্রতি বছর এ দিনটি পালিত হয়। এ উপলক্ষে রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এনিম্যাল সায়েন্স এন্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন (এএসভিএম) অনুষদ কর্তৃক এক বর্ণাঢ্য র্যাণলীর আযোজন করা হয়।

সন্ধ্যা ৬টায় র‌্যালিটি এএসভিএম অনুষদের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এত অংশগ্রহণ করেন ঐ অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। র‌্যালি লী শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন মেডিসিন এন্ড পাবলিক হেলথ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. কে বি এম সাইফুল ইসলাম এবং এনিম্যাল প্রোডাকশন এন্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো: মহববত আলী।

বক্তারা বলেন, পৃথিবীবাসী বাংলাদেশকে আমাদের জাতীয় প্রাণী রয়েল বেঙ্গল টাইগারের দেশ হিসেবে জানলেও বর্তমানে বাংলাদেশে এই প্রাণীটি বিলুপ্তির পথে। ২০০৪ সালে যেখানে বাঘের সংখ্যা ছিল ৮৮০টিরও বেশি আজ সেখানে বাঘের সংখ্যা এসে দাঁড়িয়েছে মাত্র ১০৬ টিতে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ, গণপিটুনি, চোরা শিকারীসহ নানা কারণে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। আর এ কারণে সংকটে পড়েছে সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগার।  জলবায়ু পরিবর্তনে পানি-মাটিতে লবণাক্ততা বৃদ্ধি, শিকারী ও চেরাকারবারীদের দৌরাত্ম, অবাধ চলাচলে বাধা সৃষ্টি ও খাদ্য সঙ্কটসহ প্রাকৃতিক ও মনুষ্যসৃষ্ট বেশকিছু কারণে বাঘের বাসযোগ্য পরিবেশ ধ্বংস হচ্ছে।এই সংকটাপন্ন অবস্থা থেকে বাঘকে রক্ষা করা না গেলে একদিন আর রয়েল বেঙ্গল  টাইগারের  দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে কেউ চিনবে না। তাই সরকারকে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে বাঘের অস্তিত্বকে টিকিয়ে রাখতে হবে।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, জাতীয় প্রাণী বাঘ রক্ষায় সরকার এবং আন্যান্যদের পাশাপাশি ভেটেরিনারিয়ানদেরকেও দায়িত্ব পালন করতে হবে। ভ্যাকসিন এবং উপযুক্ত চিকিৎসার মাধ্যমেও বাঘ রক্ষায় ভূমিকা পালন করা যায় যা শুধুমাত্র ভেটেরিয়ানদেরই দায়িত্ব। এছাড়াও জনসচেতনতায় বাঘের উপকারীতা ও ঐতিহ্য তুলে ধরতে হবে দেশের জনসাধারণদের কাছে।