Saturday, 18 November 2017

 

ছাত্রলীগের চেয়ে ছাত্র ইউনিয়ন লেখনী ও সংস্কৃতি চর্চায় অনেক এগিয়ে- বাকৃবি উপাচার্য

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি প্রতিনিধি:“আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলাম, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের অফিসে বসে গল্প করতাম। পাশেই ছিল ছাত্র ইউনিয়নের অফিস। তারা সেখানে বই নিয়ে পড়ত। আমি তখনই লক্ষ্য করি তারা ছাত্রলীগের চেয়ে কয়েকটি দিকে অনেক এগিয়ে। সেটি হচ্ছে লেখনী ও সংস্কৃতি চর্চার দিক দিয়ে। আমি আশা করি, এ অবস্থানটা তোমরা ধরে রাখবে। শুক্রবার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ছাত্র ইউনিয়ন সংসদের সুবর্ণ জয়ন্তী ও প্রাক্তন পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষকের বক্তব্যে  বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.মো. আলী আকবর এসব কথা বলেন। ”

১৯৬৬ সালে যাত্রা শুরু করে ছাত্র ইউনিয়নের বাকৃবি সংসদ। পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় মানবিক বাংলাদেশ চাই’-এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সংগঠনটি। এ উপলক্ষে সকাল ১০ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজয়’৭১ এর পাদদেশে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী ও অ্যামিরিটাস অধ্যাপক ড. অজয় রায়।

এ সময় ছাত্র ইউনিয়নের পতাকা উত্তোলন করেন সুবর্ণ জয়ন্তী ও প্রাক্তন পুর্নমিলনী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. নূর মোহাম্মদ তালুকদার। এরপর একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন মিলনায়তনে আলোচনা সভা, স্মৃতিচারণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন অধ্যাপক ড. অজয় রায়, চট্রগ্রাম ভেটেরিনারি ও এ্যানিমেল সায়েন্সেস ইউনিভার্সিটির সাবেক উপাচার্য ড. নীতিশ চন্দ্র দেবনাথ, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন, ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি লাকী আকতার প্রমুখ।

আলোচনা সভার সঞ্চালনা করেন ছাত্র ইউনিয়নের বাকৃবি সংসদের সভাপতি তানভীর আহমেদ রিয়াদ। এসময় ছাত্র ইউনিয়নের বাকৃবি সংসদের ৫ শতাধিক বর্তমান ও সাবেক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি হিসেবে এমিরিটাস অধ্যাপক ড.অজয় রায় বলেন, ছাত্র ইউনিয়ন মানুষ গড়ার কারিগর। তাদের দাবিগুলো গণ মানুষের দাবি। ছাত্র ইউনিয়নকে তাদের অতীতের গৌরবজ্জ্বল ঐতিহ্য ধরে রাখার আহবান জানান।