নারী দিবসে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শোভাযাত্রা ও আলোচনা অনুষ্ঠিত
Friday, 22 September 2017

 

নারী দিবসে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শোভাযাত্রা ও আলোচনা অনুষ্ঠিত

বিধান মুখার্জী, গণবিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে বুধবার সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান ও সমাজকর্ম বিভাগের উদ্যোগে ছাত্র-শিক্ষক অংশগ্রহণে শোভাযাত্রা ও এই দিবসকে আলোচ্য করে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  সমতা উন্নয়ন ও শান্তি–এই স্লোগানকে সামনে রেখে সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক তাহমিনা আক্তারের নেতৃত্বে দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সামনে থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয়।

এসময় শোভাযাত্রায় গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মোঃ দেলওয়ার হোসেন, রেজিস্ট্রার দেলোয়ার হোসেন, গণস্বাস্থ্য সমাজ ভিত্তিক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ড. লায়লা পারভিন বানু  , বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আকবর খান, মৌল ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডীন ড. নজরুল ইসলাম, প্রশাসনিক কর্মকর্তা-কর্মচারী, সমাজবিজ্ঞান ও সমাজকর্ম বিভাগ ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

শোভাযাত্রা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমীক ভবনের ৪২১ নং কক্ষে নারী দিবস উপলক্ষে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মোঃ দেলোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, "গণ বিশ্ববিদ্যালয়ও সর্বদা নারীদের সমতা উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখে। শিক্ষার হার বাড়লেই নারীদের অধিকার সচেতনতা বাড়বে, নারী শিক্ষা এবং অধিকার সচেতনতার ওপর গুরুত্ব বাড়াতে হবে।"

বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ ড. লায়লা পারভীন বানু টার বক্তব্যে সমাজে নারীর অবস্থা তুলে ধরে বলেন, "বর্তমানে নারীশিশুদের উপর নির্যাতন বেড়েছে। সর্বস্তরে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে কেবলমাত্র নারীদেরই নয়, পাশাপাশি পুরুষদেরও এগিয়ে আসতে হবে।" তিনি আরোও বলেন, "১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে আগরতলার গণস্বাস্থ্য হাসপাতাল ৪৮০ বেড নিয়ে আহত মুক্তিযোদ্ধাদের সেবা দান করে, যার মধ্যে নারীদের ভূমিকা ছিল অন্যতম। দেশের মেয়েদের সুযোগ দিয়ে অবশ্যই তারা এগিয়ে যেতে পারবে, গণ বিশ্ববিদ্যালয় সেই ধারা অব্যাহত রেখে সামনের দিকে এগিয়ে চলছে।

সমাজকর্ম ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক শহীদ মল্লিক উপস্থাপনা বক্তব্যে বলেন, "পুঁজিবাদী সমাজে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ ও অবহেলিত আজ নারীরাই।" এছাড়া  নারী-পুরুষ সমতা অর্জিত হলে উন্নয়নের দিক দিয়ে বাংলাদেশ আরও সম্পূর্ণ হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।