Friday, 15 December 2017

 

বাকৃবিতে দুই হলে দফায় দফায় মারামারি

বাকৃবি প্রতিনিধি:বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক দুটি হলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে দফায় দফায় মারামারির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দুপুর ২টার দিকে ওই মারামারির ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ শামছুল হক হল ও আশরাফুল হক হলের জুনিয়র শিক্ষার্থীদের কথাকাটির জের ধরে মারামারির ঘটনাটি ঘটে। প্রথমে শহীদ শামসুল  হক হলের আবাসিক শিক্ষার্থী সাকিব ফেরদৌস রাতুল তার জুনিয়র আশরাফুল হক হলের আবাসিক নুরে আলম অনিককের সাথে কথাকাটাটির এক পর্যায়ে মারধর করে। গত মঙ্গলবার রাতে রাতুল শেষ মোড় এলাকায় খেতে গেলে অনিক ও তার বন্ধুরা মিলে রাতুলকে মারধর করে। একই ঘটনায় বুধবার দুপুর ২টার দিকে ফের দু হল লাঠিসোঠা নিয়ে মারামারিতে লিপ্ত হয়। শামসুল হক হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা ধাওয়া দেয় আশরাফুল হক হলের শিক্ষার্থীদের। এসময় আশরাফুল হক হলের দারোয়ানকে গলা টিপে ধরার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সবুজ কাজী তাৎক্ষণিক উপস্থিত হলে আশরাফুল হক হলে ঢুকতে বাধা দেয় দারোয়ানরা। তারা জানান, আশরাফুল হক হলের শিক্ষার্থীরা তাকে হলের দরজা খুলতে নিষেধ করেছিলেন তাই সভাপতিকে চিনতে না পেরে হলে ঢুকতে বাধা দেন। এক পর্যায়ে সবুজ কাজী আশরাফুল হক হলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করলে তারা শান্ত হয়।

রাতুল বিশ্ববিদ্যালয়ের পশুপালন অনুষদে দ্বিতীয় বর্ষে এবং অনিক কৃষি অনুষদে প্রথম বর্ষে অধ্যায়ন করছে। মুঠোফোনে রাতুল ও অনিকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বিষয়টি কৌশলে এড়িয়ে যান। মারামারির ঘটনাটি অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি  মো. সবুজ কাজী বলেন, ব্যক্তিগত তুচ্ছ ঘটনাকে  কেন্দ্র করে তারা মারামারি করেছে। আমি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম জাকির হোসেন বলেন, বিশৃঙ্খলাকারী কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। ২৪ ঘন্টার মধ্যে জড়িতদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওয়তায় আনা হবে।