Saturday, 18 November 2017

 

রাবিতে সাংবাদিক নির্যাতন-দ্রুত শাস্তির দাবীতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও মানবন্ধন

এস.এম.আল-আমিন,রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) কর্মরত দ্য ডেইলি স্টারের সংবাদকর্মী আরাফাত রহমানকে ছাত্রলীগের বাস ভাংচুরের ছবি তোলায় সোমবার বেধড়ক মারধোর করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এর পরিপেক্ষিতে আন্দোলনমুখর রাবি ক্যাম্পাস। এ ঘটনায় সোমবার রাত ১২টার দিকে চার ছাত্রলীগ নেতার নাম উলে¬খসহ অজ্ঞাত আরও ৮-১০ জনের নামে নগরীর মতিহার থানায় ‘হত্যাচেষ্টা’ মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে রাবি শাখা ছাত্রলীগের এ হামলার প্রতিবাদে ও জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার বেলা ১১ ঘটিকায় ক্যাম্পাসে প্রগতিশীল ছাত্রজোট বিক্ষোভ মিছিল করেছে এবং বেলা ১২ ঘটিকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে রাবিতে কমর্রত সাংবাদিকবৃন্দ।

 

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আরাফাতের ওপর হামলায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতা মো. কানন, সাইফুল ইসলাম বিজয়, আহমেদ সজিব, আবির হাসান লাবনসহ জড়িত নেতাকর্মীর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবিলম্বে বহিষ্কার করতে হবে।

ঘটনায় জড়িতদের মধ্যে দুই ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারের কথা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, শুধু দুই নেতাকে বহিষ্কারের নাটক করলেই আপনাদের দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় না। জড়িতদের স্থায়ী বহিষ্কার করে তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। যতদিন পর্যন্ত আপনারা তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা না নিবেন ততদিন আমরা রাবি ছাত্রলীগের কোনো পজিটিভ নিউজ করব না।

বক্তারা আরো বলেন, মারধরের ঘটনায় আরাফাত রহমান বাদী হয়ে যে মামলা করেছেন পুলিশ প্রশাসন যেন আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করে।

রাবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজ রনির সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি কায়কোবাদ খান, সাধারণ সম্পাদক হুসাইন মিঠু, রাবি প্রেসক্লাবের সভাপতি তাসলিমুল আলম তৌহিদ, সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক সোহাগ, রাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি হাসান আদিব, সহ-সভাপতি মুস্তাফিজ মিশু, , দৈনিক সমকাল ও ডিবিসি নিউজের রাজশাহী ব্যুরো প্রধান সৌরভ হাবিব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী সদস্য জাবিদ অপু এবং বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আব্দুল মজিদ অন্তর, ছাত্র ফেডারেশনের সদস্য রাশেদ রিমন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ে কমর্রত সাংবাদিক, রাজশাহী শহরের সাংবাদিকসহ দুই শতাধিক সাংবাদিক ও শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত সোমবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে দেশ ট্রাভেলস-এর বাস ভাঙচুর করছিল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আহমেদ সজীব, সাংগঠনিক সম্পাদক আবিদ আল হাসান লাবন, আইন বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয়, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক কাননসহ ১০/১২ জন নেতাকর্মী।

ওই ঘটনার ছবি তোলায় সাংবাদিক আরাফাতের ওপর চড়াও হয়ে তাকে মারধর করে ছাত্রলীগ নেতারা। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় আরাফাতকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বর্তমানে রামেক হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।###