Saturday, 23 September 2017

 

মাইকের আওয়াজে পাঠদান বিঘ্ন-ক্যাম্পাস খুলতেই আন্দোলনে কর্মকতা-কর্মচারীরা

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ক্যাম্পাস খুলতে না খুলতেই আন্দোলনে নেমেছে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। রবিবার থেকে ২ দফা দাবিতে অফিসার পরিষদ ও ৯ দফা দাবিতে কর্মচারী ঐক্য পরিষদ ওই আন্দোলনে নামেন।

জানা গেছে, সকাল ১০ টায় প্রশাসন ভবনের সামনে পৃথকভাবে ওই অবস্থান কর্মসূচি পালন করে তারা। এদিকে মাইকের আওয়াজে ক্লাসে পাঠদানে সমস্যায় পড়েছেন শিক্ষার্থীরা। প্রশাসন ভবন সংলগ্ন কৃষি অনুষদ, কৃষি প্রকৌশল ও কারিগরি, ভেটেরিনারি অনুষদসহ বিভিন্ন অনুষদের প্রায় তিন সহস্রাধিক শিক্ষার্থী মাইকের বিকটে শব্দে ক্লাসে মনোযোগ রাখতে পারছেন না বলে অভিযোগ দিয়েছেন শিক্ষর্থীরা।

আন্দোলনরত কর্মচারীরিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এডহক এ নিয়োজিত কর্মচারীদের চাকুরী স্থায়ীকরন, শূন্য পদের বিপরীতে পদ প্রদশন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রী ভর্তির ক্ষেত্রে কর্মচারী সন্তানদের জন্য কোঠা চালু, ইনক্রিমেন্ট বৃদ্ধি, কর্মচারীদের নীতিমালা সংশোধনসহ মোট ৯টি দাবিতে তারা এ আন্দোলন করছেন।

অন্যদিকে কমকর্তারা, জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ বাস্তবায়ন ও পদোন্নয়নের দাবিতে গত জুন মাসে কর্মবিরতি পালন করে আন্দোলন করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার পরিষদ। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি কমিটি করে বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখার আশ্বাস দেয় প্রশাসন। কমিটির চূড়ান্ত আশ্বাস না পেয়ে তারা ঈদের পর প্রথম কর্মদিবস থেকেই আন্দোলনে যান।

এ বিষয়ে কর্মচারী পরিষদের আহবায়ক মো. নজরুল ইসলাম বলেন, কর্মচারীদের দাবি বাস্তবায়নে সন্তোষজনক কোন জবাব আমরা প্রশাসনের কাছ থেকে পাইনি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। অফিসার পরিষদের সভাপতি আরীফ জাহাঙ্গীর বলেন, আমাদের নায্য দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন করে যাবো। দ্রুতসময়ে দাবি আদায় না হলে, সামনে আরও কঠোর আন্দোলনে যাওয়ারও হুশিয়ার করেন তিনি।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আলী আকবর বলেন,কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দাবির বিষয়ে দুইটি কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর তাদের সুপারিশ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আন্দোলনের নামে ক্লাসে বিঘ্ন ঘটানোর কারো অধিকার নেই।