Sunday, 23 July 2017

 

বাকৃবিতে আধুনিক পশুপ্রজনন কলাকৌশল বিষয়ক কর্মশালা

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি প্রতিনিধি►দেশে প্রাণিজ আমিষের চাহিদা পূরণ এবং খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা অর্জনে গবাদি পশুর জাত উন্নয়নের বিকল্প নেই। মাংস ও দুধের উৎপাদন বৃদ্ধি করতে হলে আধুনিক পদ্ধতিতে কৃত্রিম প্রজনন, উন্নতজাতের ষাঁড় ও গাভী হতে মানসম্পন্ন সিমেন ও ভ্রুণ উৎপাদন, লিঙ্গ নির্ধারন, সংরক্ষণ এবং মাঠ পর্যায়ে সাধারণ জাতের গাভীতে প্রতিস্থাপন করতে হবে। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) রোমন্থক প্রাণী (গরু, ভেড়া) আধুনিক প্রজনন কৌশল বিষয়ে খামারীদের নিয়ে দিনব্যাপী কর্মশালা ও মুক্ত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন দেশের প্রাণিবিজ্ঞানীরা।বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন, হেকেপ প্রজেক্টের অর্থায়নে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদের সার্জারি ও অবস্টেট্রিক্স বিভাগের তত্ত্বাবধানে ওই কর্মশালা বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ নজরুল ইসলাম সম্মেলন ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।

ড. মো. মাহমুদুল আলমের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলী আকবর, সম্মানিত অতিথি হিসেবে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম শাহি আলম উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভেটেরিনারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. মাহবুব মোস্তফা, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন শাখার পরিচালক অধ্যাপক ড. মনোরঞ্জন দাস ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক অজয় কুমার রায়। কর্মশালায় স্বাগত ভাষণ দেন প্রকল্পের সহকারী উপ প্রকল্প ম্যানেজার অধ্যাপক ড.ফরিদা ইয়াসমিন বারী ও মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন উপ প্রকল্প ম্যানেজার অধ্যাপক ড. নাছরীর সুলতানা জুয়েনা।

দুটি পর্বে বিভক্ত ওই কর্মশালায় দ্বিতীয় পর্বের সভাপতিত্ব করেন ভেটিরিনারি অনুষদের প্রাক্তন ডিন অধ্যাপক জালাল আহমেদ। দ্বিতীয় পর্বেও মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা খামারীরা।