Friday, 21 September 2018

 

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ডীনস্ এ্যাওয়ার্ড ২০১৮ প্রদান

গবেষণা ডেস্ক:গবেষণাকর্মে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় বিজ্ঞান অনুষদের দুইজন শিক্ষক ‘ডীনস্ এ্যাওয়ার্ড ২০১৮’ অর্জন করেছেন। আজ বুধবার সকাল ১০টায় অনুষদের সভাকক্ষে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. সালেহ্ হাসান নকীব এবং রসায়ন বিভাগের প্রফেসর ড. হাসান আহমদকে বিজ্ঞান অনুষদ এই পুরস্কারে ভূষিত করে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান এই পুরস্কার প্রদান করেন। এছাড়া সর্বোচ্চ পরীক্ষায় প্রাপ্ত সিজিপিএ’র ভিত্তিতে বিজ্ঞান অনুষদের ১৯ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়। সেখানে অন্যান্যের মধ্যে বিজ্ঞান অনুষদের প্রাক্তন অধিকর্তা, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রফেসর সালেহ্ হাসান নকীব ফিজিক্যাল ও ম্যাথমেটিক্যাল সায়েন্সেস ক্যাটাগরি থেকে এবং কেমিক্যাল ও বায়োকেমিক্যাল সায়েন্সেস ক্যাটাগরি থেকে প্রফেসর হাসান আহমদ এই পুরস্কার লাভ করেন।

বিজ্ঞান অনুষদের অধিকর্তা প্রফেসর মো. আখতার ফারুকের সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা ও কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ। সেখানে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বিভাগগুলির পক্ষে গণিত বিভাগের সভাপতি প্রফেসর জুলফিকার আলী বক্তৃতা করেন।

অনুষ্ঠানে উপাচার্য বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চার শ্রেষ্ঠ পীঠস্থান। এখানে গবেষণা ও পঠন-পাঠনের মাধ্যমে জ্ঞান সৃজনের পাশাপাশি তা বিকশিতও করা হয়। গবেষণাকর্মের স্বীকৃতিতে ডীনস্ এ্যাওয়ার্ড প্রদানের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ও যেমন সম্মানিত হলো, তেমনি তা অন্যদেরও গবেষণায় উৎসাহিত করবে। আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য অনুষদেও এ ধরনের পুরস্কার ও স্বীকৃতির প্রসার ঘটবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উপাচার্য আরো বলেন, গবেষণালব্ধ জ্ঞান শুধু যে, বিদ্যাধারাকে সমৃদ্ধ করে তাই নয়, সামগ্রিকভাবে তা জাতীয় উন্নয়নেও অবদান রাখে। তাই আমাদের পঠন-পাঠন ও গবেষণায় জাতীয় উন্নয়নের বিষয়টিকেও বিবেচনায় রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানে পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের প্রফেসর আশরাফুল ইসলাম খান ‘ডীনস্ এ্যাওয়ার্ড’-এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন। গণিত বিভাগের বিভাগের শিক্ষার্থী মুনজুরা খানম ইতি ও ইসমেত মেরীন তৃষা অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন।