Thursday, 14 December 2017

 

বেস্ট পিএইচডি থিসিস অ্যাওয়ার্ড-২০১৭ পেলেন ড. মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন প্রধান

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম: বেস্ট পিএইচডি থিসিস অ্যাওয়ার্ড-২০১৭ (বিদেশি ক্যাটাগরি) পেলেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বারি) কীটতত্ত্ব বিভাগের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন প্রধান। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ কীটতত্ত্ব সমিতির ১০ম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির হাত থেকে তিনি এ অ্যাওয়ার্ড গ্রহন করেন।

ড. প্রধান Aristotle university of Thessaloniki, Greece হতে State Scholarship Foundation কর্তৃক প্রদত্ত বৃত্তির অর্থায়নে Pesticide Science বিষয়ে Excellent grade (10 out of 10) পেয়ে পিএইচডি ডিগ্রী অর্জন করেন। তাঁর গবেষণার বিষয় ছিল: "Variability of Pesticide Residue in Medium and Lagre Size Vegetable Crop Units"; তাঁর গবেষণালব্ধ ফলাফল হতে ২টি গবেষণা প্রবন্ধ আন্তর্জাতিক স্বনামধন্য Springer জার্নাল (Food Analytical Methods), ২টি গবেষণা প্রবন্ধ Taylor & Francis জার্নাল (International Journal of Environmental Analytical Chemistry Journal of Environmental Science and Health part-B) এবং ১ টি গবেষণা প্রবন্ধ John Wiley & Sons (Journal of the Science of Food and Agriculture)-এ প্রকাশিত হয়।

এছাড়া তিনি "8th European conference on pesticides and related Organic Micropollutants in the Environment"-এ তার গবেষণালব্ধ ফলাফলের একাংশ সফলতার সাথে উপস্থাপন করেন। তাঁর গবেষণালব্ধ জ্ঞান ফলমূল, শাকসবজি, মাছ, তামাক, চা ইত্যাদিতে বহুবিদ বালাইনাশকের অবশিষ্টাংশের (Multiple pesticide Residues) উপস্থিতি ও পরিমাণ নিরুপণের জন্য আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহনযোগ্য পদ্ধতি উদ্ভাবনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আশা করেন গবেষকগণ।

ড. প্রধান বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ এবং শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়-এর এম,এস ডিগ্রীর ছাত্র-ছাত্রীদের গবেষণা তত্ত্বাবধায়ক হিসাবেও দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি শিক্ষা জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে প্রথম বিভাগ/শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও দেশীয় বৈজ্ঞানিক জার্নালে তাঁর ২৫ টি পূর্ণ গবেষণা প্রবন্ধ ও ৪টি বই সহ মোট ৩৫টি প্রকাশনা রয়েছে।

তিনি নারায়নগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ উপজেলাধীন পশ্চিমগাঁও গ্রামে ১৯৭৬ সালে জন্মগ্রহন করেন। ব্যক্তিগত জীবনে ড. প্রধান বিবাহিত ও ২ সন্তানের জনক।